• Breaking News

    ইপিএল আজ থেকে, পরীক্ষা শুরু গারদিওলার

     

    epl logoরাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    বিশ্বের সবচেয়ে প্রচারিত, বিজ্ঞাপিত ও সবচেয়ে ধনী ফুটবল লিগ আজ শুরু!


    ইংল্যান্ডের জাতীয় ফুটবল দলের যে-অবস্থাই হোক না কেন, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ বা ইপিএল নিয়ে মাতামাতির শেষ নেই। বিশেষ করে এশিয়ায়। প্রথমত সময়, দ্বিতীয়ত ইংরেজি ভাষা, তৃতীয়ত স্টার স্পোর্টস সংস্থার ‘অ্যাগ্রেসিভ মার্কেটিং’-এর সৌজন্যে। এশিয়ায় বিরাট সংখ্যক মানুষের ভিড়। তাই তাদের জন্য খেলার সূচি এমন রাখা হয় যাতে সন্ধেবেলা থেকেই খেলা দেখতে বসে পড়া যায় সপ্তাহান্তে। ফলে, বাড়ে টিআরপি। আর, টেলিভিশন সংস্থার জন্য তো টিআরপি-ই ঈশ্বর!


    এবার কোচ হিসাবে দুজন বিখ্যাত নতুন ইপিএল-এ। ম্যাঞ্চেস্টার সিটিতে এসেছেন স্পেনের পেপ গারদিওলা, চেলসিতে ইতালির আন্তোনিও কোন্তে। আরও চারজন আছেন, নজর থাকবে যাঁদের দিকে। আর্সেনালে পোড়খাওয়া আর্সেন ওয়েঙ্গার, এখনও। ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড-এ এসেছেন হোসে মোরিনিও, গতবার চেলসিতে খারাপ পারফরম্যান্সের কারণে যাঁকে সরানো হয়েছিল মাঝপথে। লিভারপুলে আছেন জার্মান জুরগেন ক্লপ। আর, গতবার যাদের রূপকথার দৌড় শেষ হয়েছিল ইপিএল-চ্যাম্পিয়ন হিসাবে সেই লেস্টার সিটি-তে ইতালীয় ক্লদিও রানিয়েরি।


    ছয় কোচের দৌড় শুরু, ৩৮ ম্যাচের পর শীর্ষস্থানে থাকার।


    আজ সন্ধে পাঁচটায় প্রথম খেলা। গতবারের চ্যাম্পিয়ন লেস্টার অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে হাল সিটির বিরুদ্ধে। সেই ম্যাচ শেষ হওয়ার পর সাড়ে সাতটা থেকে আরও পাঁচটি খেলা। রাত দশটায় ম্যাঞ্চেস্টার সিটি ঘরের মাঠে খেলবে সান্ডারল্যান্ড-এর বিরুদ্ধে।


    লেস্টার গতবারের চেয়ে একটু কি কম শক্তির? এনগোলো কঁতে দল ছেড়েছেন, গিয়েছেন চেলসিতে। জেমি ভার্ডি অবশ্য আছেন। ইউরো-তে তাঁর পারফরম্যান্স যা-ই হোক না কেন, ইপিএল-এ তিনি প্রায় গোলমেশিন। লেস্টারের সুবিধা, হাল সিটি দুর্বলতম। তিন সেন্টার ব্যাকেরই চোট। দলে নাকি মাত্র তেরজন ‘ফিট’ ফুটবলার এই মুহূর্তে, জানিয়েছে ইংল্যান্ডের গার্ডিয়ান। তাদের আবার ম্যানেজারও নেই কেউ! জিতে শুরু করা উচিত গতবারের চ্যাম্পিয়নদের।


    নতুন দেশে নতুন দায়িত্বে গারদিওলা। সবাই আলাদা করে চোখ রাখবেন তাঁর দলের দিকে। বার্সেলোনা ও বায়ার্নকে ঘরোয়া লিগ দিয়ে এসেছেন, এবার পরীক্ষা ইংল্যান্ডে। প্রথম ম্যাচে তিনি পাচ্ছেন না অধিনায়ক কোম্পানিকে, চোটের কারণে। জার্মানি থেকে ইলকো গুন্ডোগানক সই করালেও প্রতিভাবান মিডফিল্ডারেরও চোট। সুতরাং, আগর বছরের দল ধরেই খেলাতে হবে মোটামুটি। গোলে হার্ট, ইংল্যান্ডকে বারবার যাঁর উপস্থিতি ব্যথিত করে! নতুন-আসা স্টোনস ছাড়া রক্ষণে বাকি তিনজন পুরনো – ওতামেন্দি, সাগনা, ক্লিচি। ইয়াইয়া তুরে আর ফের্নান্দিনিও দুই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার, তার ওপরে ডে ব্রুইন-সিলভা-স্টার্লিং খেলতেন গত বছর। এক স্ট্রাইকার আগেরো। গারদিওলা কিন্তু ৪-৩-৩ খেলাতে পছন্দ করতেন। সিটিতে এসে যাঁদের পাচ্ছেন তাঁদের দিয়ে কী করে সুন্দর ফুটবল খেলাবেন, দেখতে আগ্রহী ফুটবল-বিশ্ব।

    No comments