• Breaking News

    চোট থেকে ফিরে ডিকার পায়ে হারানো সুর

    [caption id="attachment_1430" align="alignleft" width="300"]যখন একাই পাল্টে দিচ্ছেন ম্যাচের রং। বারাসতে ইউনাইটেড ম্যাচের সময় ডিকা। ছবি— ইবিআরপির সৌজন্যে যখন একাই পাল্টে দিচ্ছেন ম্যাচের রং। বারাসতে ইউনাইটেড ম্যাচের সময় ডিকা। ছবি— ইবিআরপির সৌজন্যে[/caption]

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক
    এখনও চোখে ভাসে বছর তিনেক আগের এক ডার্বিতে চোখধাঁধানো সেই গোল। দূরপাল্লার শটে লহমায় স্তব্ধ করে দিয়েছিলেন বাগানকে!
    তখনও অবিশ্বাস্য উত্তরণ হয়নি জেজে লালপেখলুয়া নামের ছেলেটার। ওই মিজোরামেরই তরুণকে ঘিরে ছিল প্রত্যাশা আর স্বপ্ন।
    তিনটে বছর পার করে এসে তিনি যেন ফিরে পেয়েছেন হারানো সুর। লাল-হলুদের অভাবের সংসারে ঝকঝকে দেখাচ্ছে লালরিনডিকা রালতে-কে।
    ইউনাইটেড এসসি-র বিরুদ্ধে বারাসতে যখন প্রবল চাপে ইস্টবেঙ্গল, তখন ডিকা একাই ঘুরিয়ে দিয়েছেন খেলা। বিরতির পর ১-১ করা থেকে ম্যাচের শেষ গোল, দুটোই পাহাড়ি মিডফিল্ডারের। যে পেনাল্টি থেকে গোল করেছেন কোরিয়ান ডু ডং, তাও আদায় করেছিলেন ডিকাই। ম্যাচের পর ডিকে বলেছেন, ‘কোচ পাশে থাকায় নিজেকে ফিরে পেতে সুবিধা হচ্ছে।’
    চার্চিল ব্রাদার্স থেকে কেরিয়ার শুরু করা ডিকা পৈলান অ্যারোজ ঘুরে ২০১২ সালে যোগ দেন ইস্টবেঙ্গলে। চার বছর লাল-হলুদেই কাটিয়ে দেওয়া পাহাড়ি ফুটবলার বেশ কিছু ম্যাচে দুরন্ত পারফরম্যান্স করেছেন। দেশের হয়ে খেলেছেন ১৪টা ম্যাচ। প্রথম আইএসএলে মুম্বই সিটির নিকোলাস আনেলকার ভীষণ পছন্দের প্লেয়ার ছিলেন তিনি।
    গত বছর চোটের জন্য সে ভাবে খেলতে পারেননি ডিকা। প্রায় সারা মরসুমই মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছিল ডিকাকে। একটা সময় তিনিও বেশ হতাশ হয়ে পড়েছিলেন। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে চমৎকার পারফরম্যান্স করছেন ডিকা।
    কলকাতা লিগে এখনও পর্যন্ত চারটে ম্যাচ খেলেছেন। করেছেন তিনটে গোল। দুটো ম্যাচে হয়েছেন সেরা। এই পরিসংখ্যানেই বোঝা যাচ্ছে, মরসুমের শুরু থেকে দারুণ ছন্দে রয়েছেন তিনি। ডিকা অবশ্য এ সব নিয়ে ভাবতে নারাজ। তাঁর কথায়, ‘নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করছি প্রতি ম্যাচে। টিমের অন্যদের কাছ থেকেও দারুণ সাপোর্ট পাচ্ছি। নিজের গোল পাওয়া নিয়ে কোনও দিন ভাবি না আমি। টিম জিতলেই খুশি।’
    ডিকার আপাতত লক্ষ্য জাতীয় টিমে নিজের জায়গা ফিরে পাওয়া।

    No comments