• Breaking News

    ‘বিধায়ক’ দীপেন্দুর গোলে তিন পয়েন্ট মহমেডানের

    মহমেডান স্পোর্টিং ২    সাদার্ন সমিতি ১


    (উসমান ৬৯, দীপেন্দু ৯০+২) (বসন্ত ৭২, পেনাল্টি)


    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    [caption id="attachment_1549" align="alignleft" width="300"]dipendu mds মহমেডানের জার্সি গায়ে অনুশীলনে ‘বিধায়ক’ দীপেন্দু বিশ্বাস। ছবি, দীপেন্দুর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে[/caption]

    দীপেন্দু দুয়ারি মাঠের বাইরে গেলেন ৯০ মিনিটে। ইনজুরি টাইমের জন্য মাঠে এলেন বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস। দু-মিনিটের মধ্যে গোল বিধায়কের পা থেকে। মহমেডান স্পোর্টিং জিতে গেল দীপেন্দুর গোলেই!

    বিধায়ক প্রতিযোগিতামূলক ফুটবল খেলছেন, এ-বাংলা দেখেনি আগে। শুধু খেলছেন নয়, গোলও করছেন! আবার, সেই গোলেই জিতছে তাঁর দল! কলকাতা ফুটবলে হয়নি এমন নিশ্চিত। ভারতে কি কখনও হয়েছে?

    একদিন আগেই বিধানসভায় বক্তব্য রেখেছিলেন, পশ্চিমবঙ্গ থেকে রাজ্যের নাম ‘বাংলা’ করার পক্ষে। ‘আমার গায়ে বাংলার জার্সি। সারা দেশে আমার পরিচিতি বাংলার খেলোয়াড় হিসাবেই। এই বাংলার হয়েই খেলেছি সন্তোষ ট্রফিতে, ন্যাশনাল গেমসে। বাংলা নামে যে আবেগ-অনুভূতি জড়িয়ে তা অন্য কোনও নামে সম্ভব নয়।’ হাততালির ঝড় উঠেছিল বিধানসভায়। এবার হাততালি এল খেলার মাঠেও, বারাসতে। দীপেন্দু দেখালেন, কথার মতোই কাজেও তিনি দড়, এখনও!

    মহমেডানের প্রথম গোল ৬৯ মিনিটে। মনবীরের পাস থেকে উসমান আশিকের বাঁপায়ের শটে। কিন্তু ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি মহমেডান। সেই উসমানই বক্সের মধ্যে ফাউল করেছিলেন অয়ন দাসশর্মাকে। পেনাল্টি দিতে দ্বিধা করেননি রেফারি রণজিৎ বক্সি। সাদার্নের বসন্ত সিং এবারের সিএফএল-এ নিজের চতুর্থ গোল করে ফেলেন, সেই পেনাল্টি থেকে।

    ১-১ ছিল খেলা। মোটামুটি সবাই-ই ধরে নিয়েছিলেন ম্যাচ ড্রয়ের দিকে। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বাজিমাত বহুযুদ্ধের ঘোড়া দীপেন্দু বিশ্বাসের। নীতেশ টিকারার শটে বিশেষ জোর ছিল না। কিন্তু দীপেন্দুর ছোঁয়ায় সেই বল আশ্রয় নিল জালে। এনে দিল মহমেডানকে মহার্ঘ্য তিন পয়েন্ট। ফলে, ৬ ম্যাচ খেলে মহমেডান এখন ১৫ পয়েন্ট পেয়ে সিএফএল প্রিমিয়ার এ বিভাগে ইস্টবেঙ্গলের চেয়ে তিন পয়েন্ট পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে।

    No comments