• Breaking News

    দীপা ও বিরাটের কোচ দ্রোণাচার্য

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    bishweshwar nandi

    ‘দ্রোণাচার্য’ পুরস্কার দেওয়া হয় দেশের সেরা কোচকে। দেশকে যিনি উপহার দিয়েছেন খেলার অন্যতম সেরা তারকা। রিও অলিম্পিক শেষে এই পুরস্কার আর কে-ই বা পেতে পারতেন বিশ্বেশ্বর নন্দী ছাড়া!

    আগরতলার বিশ্বেশ্বরের হাতেই গড়ে উঠেছিলেন দীপা কর্মকার, রিও অলিম্পিকে যিনি ভারতীয় জিমন্যাস্টিক্সের পতাকা তুলে ধরেছিলেন বিশ্বের দরবারে। বিশ্বেশ্বরের সঙ্গেই এই সম্মান পাচ্ছেন ভারতের আরও পাঁচ কোচ। তাঁদের মধ্যে আছেন ভারতীয় টেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলির কোচ রাজ কুমার শর্মাও। বাকি চারজন – নাগপুরি রমেশ (অ্যাথলেটিক্স), সাগরময় দয়াল (বক্সিং), প্রদীপ কুমার (সারা জীবনের স্বীকৃতি, সাঁতার), মহাবীর সিং (সারা জীবনের স্বীকৃতি, কুস্তি)।

    দ্রোণাচার্য পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়েছিল ১৯৮৫ সালে। ভারতে কিংবদন্তি অ্যাথলিট পিটি উষার কোচ ও এম নাম্বিয়ার পেয়েছিলেন সেই সম্মান, প্রথম। এখন দ্রোণাচার্য-দের সরকার নির্ধারিত পুরস্কার-মূল্য সাত লক্ষ টাকা।

    একই দিনে জানানো হল, ১৫ জন ক্রীড়াবিদকে অর্জুন পুরস্কার দেওয়ার কথাও। যাঁরা যাঁরা অর্জুন পুরস্কার পেলেন ২০১৬ সালে – ললিতা বাবর (অ্যাথলেটিক্স), রজত চৌহান (তীরন্দাজি), সৌরভ কোঠারি (বিলিয়ার্ডস-স্নুকার), শিবা থাপা (বক্সিং), রানি, ভিআর রঘুনাথ (হকি), গুরপ্রিত সিং, অপূর্বি চান্দেলা (শুটিং), সৌম্যজিৎ ঘোষ (টেবল টেনিস), বিনেশ ফোগত, অমিত কুমার (কুস্তি), অজিঙ্ক রাহানে (ক্রিকেট), সুব্রত পাল (ফুটবল), সন্দীপ সিং মান (প্যারা-অ্যাথলেটিক্স), বীরেন্দর সিং (বধিরদের কুস্তি)।

    ২০১৫ সালের ধ্যানচাঁদ পুরস্কার পেলেন – সত্তি গীতা (অ্যাথলেটিক্স), ডুং ডুং (হকি), রাজেন্দ্র প্রহ্লাদ শেলকে (রোয়িং)।

    No comments