• Breaking News

    গতবার ফাইনালে, এবার শুধু্ই সম্মানরক্ষার লড়াই!

    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    [caption id="attachment_2676" align="alignleft" width="300"]অনুশীলনে এফসি গোয়ার ফুটবলাররা। ছবি - আইএসএল অনুশীলনে এফসি গোয়ার ফুটবলাররা। ছবি - আইএসএল[/caption]

    গতবারের দুই ফাইনালিস্ট। খেতাব জিতেছিল চেন্নাইয়িন এফসি। রানার্স এফসি গোয়া। বৃহস্পতিবার গোয়ায় এই দুই দলই আবার মুখোমুখি। তবে, সেমিফাইনালের লড়াই থেকে ছিটকে গিয়েছে দু-দলই। ফতোরদার জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে লড়াই শুধুই সম্মানরক্ষার।

    গোয়ার সংগ্রহে ১১ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট। অবস্থা এমন যে, শেষ ম্যাচটা জিতলেও থাকবে সবার শেষেই। তৃতীয় হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভুলে যেতে চাইবেন গোয়ার কোচ জিকো। কিন্তু, শেষ ম্যাচে যেহেতু সামনে চেন্নাইয়িন, অন্য অনেক লড়াইও থাকছে।

    গতবারের ফাইনালে গোয়া শেষ পর্যন্ত হেরেছিল ২-৩, ম্যাচের একেবারে শেষদিকে দুটি গোল খেয়ে। স্তিভেন মেনদোজা, চেন্নাইয়ের তারকা ফুটবলার, জোড়া গোল করে জিতিয়েছিলেন চেন্নাইকে।

    হারটা এখনও ভোলেননি গোয়ার সমর্থক ও ফুটবলাররা। ঘরের মাঠে সেই স্মৃতি ভোলাতে চাইবেন তারা। যদিও শেষ ম্যাচে দিল্লির কাছে ১-৫ হেরেছিল গোয়া, কোচ জিকো চাইবেন ইতিবাচক ফল নিয়েই লিগ শেষ করতে।

    ‘দিল্লি খুবই ভাল দল, বেশ জমাট। জানে কী করে খেলতে হয় নিজেদের খেলা। প্রথমার্ধে ধরে রাখা গিয়েছিল,কিন্তু ফিরে এসেছিল নিজেদের ছন্দে, দ্বিতীয়ার্ধে। তা ছাড়া, মোটিভেশনও একটা বড় ব্যাপার। যখন বাড়তি অনুপ্রেরণা থাকে, যেমন ধরুন, সেমিফাইনালে জায়গা পাওয়ার জন্য লড়াই, খেলার ধরন পাল্টে যায় সব দলেরই। আমাদের তেমন কিছু ছিল না আর। হয়ত সেটাও একটা কারণ,’ বলেছিলেন জিকো, বড় ব্যবধানে হারের কারণ বিশ্লেষণ করতে গিয়ে।

    চেন্নাইয়িন এফসি-রও সেমিফাইনালে যাওয়ার আর কোনও সুযোগ নেই। কিন্তু শেষ ম্যাচে গোয়াকে হারিয়ে যতটা সম্ভব ওপরে থেকে শেষ করতে চায় গতবারের চ্যাম্পিয়নরা।

    শেষ ম্যাচে নর্থইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে চেন্নাই এগিয়েছিল ৩-২, সেমিফাইনালের লড়াইয়ে ভীষণভাবেই ছিল। কিন্তু শেষ মিনিটে নর্থইস্ট সমতা ফেরানোয় চেন্নাইকে ছিটকে যেতে হয় লড়াই থেকে। মার্কো মাতেরাজ্জির এখনও মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে, বারবার শেষ মুহূর্তে গোল-খাওয়া।

    তৃতীয় আইএসএল-এ মাতেরাজ্জির দলের এই একটাই সমস্যা ছিল, শেষ দিকে গোল খেয়ে পিছিয়ে যাওয়া। ম্যাচে দাপট রেখেও ওই কারণে পয়েন্ট হারাতে হয়েছে বারবার। নর্থইস্ট ছাড়াও আতলেতিকো দে কলকাতা, মুম্বই সিটি এফসি এবং এফসি পুনে সিটিও শেষ দিকেই গোল করে পয়েন্ট ছিনিয়ে নিয়েছিল চেন্নাইয়ের কাছ থেকে।

    তবে, প্রতিযোগিতার বাইরে চলে গেলেও মাতেরাজ্জি বলেছেন, দলের পারফরম্যান্সে গর্বিত তিনি। তুলে ধরেছেন প্রথম তিন বছরের পারফরম্যান্স।

    ‘তিন বছর আগে শুরুর দিন যদি কেউ বলত যে ভারতে এসে প্রথমবার আমি সেমিফাইনালে পৌঁছব, দ্বিতীয় বছরে চ্যাম্পিয়ন হব আর তৃতীয় বছরে এভাবে বেরিয়ে যাব, রাজি হয়ে সই করে ফেলতাম চুক্তিতে! তাই নর্থইস্টের বিরুদ্ধে পা্রফরম্যান্স নিয়েও আলাদা করে বলার কিছু নেই। আমি খুশি, শেষ ম্যাচটা এখন যতটা ভাল সম্ভব খেলতে চাই,’ বলেছেন মাতেরাজ্জি।

    গোয়াকে হারালে এবং অন্যান্য ম্যাচের ফলাফলও চেন্নাইয়ের অনুকূলে হলে তালিকায় পাঁচে থেকে শেষ করতেই পারে গতবারের চ্যাম্পিয়নরা।

    No comments