• Breaking News

    মুম্বই শীর্ষেই, দিল্লি-মুম্বই সেমিফাইনাল হচ্ছে না

    মুম্বই সিটি এফসি ০ দিল্লি ডায়নামোস ০


    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

     

     

    [caption id="attachment_2699" align="alignleft" width="300"]সোনি নর্দে চেষ্টা করেছিলেন, গোল পাননি। ছবি - আইএসএল সোনি নর্দে চেষ্টা করেছিলেন, গোল পাননি। ছবি - আইএসএল[/caption]

    সবচেয়ে বেশি ২৭ গোল করেছিল দিল্লি ডায়নামোস। আর মুম্বই সিটি এফসি খেয়েছিল সবচেয়ে কম ৮ গোল। দু-দলের শেষ খেলায় মুম্বই গোল করার একটু বেশি চেষ্টা করল, গোল না-খাওয়ার চেষ্টায় সফলও হল দিল্লি। কেউ জিতল না যেমন, হারলও না কোনও দলই!

    তবে, গোল করার চেষ্টা যে একেবারে ছিল না, এমন নয়। কিন্তু সেমিফাইনালে পৌঁছে যাওয়ায় তাগিদ ততটা না-থাকাই স্বাভাবিক। লিগ তালিকায় শীর্ষস্থানের হাতছানি ছিল। কিন্তু তাতে খুব বেশি পা্র্থক্য হত না। নকআউট পর্বে যাদের বিরুদ্ধেই খেলতে হোক, জিততে হবে। আইএসএল-এ সব দলেরই শক্তির পার্থক্য উনিশ-বিশ। সেই কারণে আরও বেশি জরুরি ছিল, এই ম্যাচে সেরা তারকাদের বিশ্রাম দিয়ে সেমিফাইনালের জন্য তরতাজা রেখে দেওয়া। জিয়ানলুকা জামব্রোতা তো আগের ম্যাচের আটজনকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন, মার্কি ফুটবলার মালুদাসহ।

    সেভাবে গোলমুখ খুলে ফেলা যায়নি, কিন্তু গোলের সুযোগ এসেছিল দু-দলের কাছেই। দূর থেকে নেওয়া শটে। যেমন, ৭২ মিনিটে মুম্বইয়ের কাফুর বাঁপায়ের জোরালো শট ক্রসবারে লেগে ফিরে এসেছিল, দোবলাস দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখেছিলেন। ঠিক তারপরের মুহূর্তেই উল্টোদিকের বক্সের বাইরে থেকে ব্রুনো পেলিসারির শট মুম্বইয়ের এক ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে পোস্টে লেগে ফিরে এসেছিল। গোলমুখে জটলাও হয়েছিল বেশ কয়েকবার। কাফুর দূরের প্রান্তে যে পাস পায়ে পেয়ে গোলের চেষ্টা করেছিলেন ফোরলান, নিঃসন্দেহে ম্যাচের সেরা পাস।

    যেহেতু আগের দুবার সেমিফাইনালে যেতে পারেনি, মুম্বই বোধহয় একটু বেশি করেই চেয়েছিল জিততে। তাই, ফোরলান খেললেন শুরু থেকে, সোনি নর্দেকেও পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামানো হল, যিনি মাঠে এসেই গোল করার মতো জায়গায় পৌঁছলেও শটে জোর এবং নিশানা ঠিক রাখতে পারেননি। পরে নেমে দিল্লির মালুদাও কিছু বল বাড়িয়েছিলেন, বিপদের গন্ধ থাকলেও শেষ পর্যন্ত সফল হয়নি কোনও দলই, গোল করতে।

    তৃতীয় হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগের সার্থকতা, গ্রুপ লিগে ৫৬-র মধ্যে ৫৫ ম্যাচ হয়ে যাওয়ার পরও পাওয়া যায়নি সেমিফাইনালের চার দল! এমনকি, গ্রুপ লিগের শেষ ম্যাচ হওয়ার আগে একমাত্র যা নিশ্চিত, ২৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই শেষ করল মুম্বই সিটি এফসি। দলের মালিক রনবীর কাপুরের কাছে যা নিশ্চিতভাবেই বাড়তি উৎসাহের। সেমিফাইনালে তাদের খেলতে হবে চতুর্থ স্থানে থাকা দলের বিরুদ্ধে। অর্থাৎ ফিরতি সেমিফাইনাল ঘরের মাঠেই খেলতে পারবে মুম্বই।

    দিল্লি ডায়নামোস এই ম্যাচে আইএসএল-এ এবারের সর্বোচ্চ গোলদাতা মার্সেলিনহোকে খেলায়নি। তবুও অ্যাওয়ে ম্যাচ থেকে এই শেষ পয়েন্ট তুলে নিয়ে দিল্লি এখন ২১ পয়েন্টে। কেরালা ব্লাস্টার্স যদি জেতে রবিবার, ২২ পয়েন্ট নিয়ে পেরিয়ে যেতে পারে। কিংবা, নর্থইস্ট ইউনাইটেড জিতলেও ২১ পয়েন্ট হবে, মুখোমুখি লড়াইতে নর্থইস্ট (১-১, ২-১) এগিয়ে। রবিবার ড্র হলে দিল্লি শেষ করবে দ্বিতীয় স্থানে। তবে, যেহেতু দ্বিতীয় বা তৃতীয়ই হতে পারে দিল্লি, শীর্ষে থাকা মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে সেমিফাইনালে খেলতে হচ্ছে না, নিশ্চিত।

    No comments