• Breaking News

    বারাসতে রবিবার ইস্টবেঙ্গল-বেঙ্গালুরু, ‘কঠিন ম্যাচ’ মানছেন দুই কোচই

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    [caption id="attachment_2862" align="alignleft" width="200"]রবিন সিং কি রবিবার শুরু থেকেই? রবিন সিং কি রবিবার শুরু থেকেই?[/caption]

    আই লিগে এবারের প্রথম তথাকথিত ‘বড় ম্যাচ’। ইস্টবেঙ্গল খেলবে বেঙ্গালুরু এফসি-র বিরুদ্ধে। বারাসতে, ইস্টবেঙ্গলের এবারের ঘরের মাঠে, রবিবার।

    গতবারের চ্যাম্পিয়ন বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে খেলার আগে আত্মবিশ্বাসী ইস্টবেঙ্গল। শেষ দুটি অ্যাওয়ে ম্যাচ থেকে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ফেরায়। ঘরের মাঠে প্রথম ম্যাচে আইজল এফসি-র বিরুদ্ধে পয়েন্ট হারিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। এবারের আই লিগে এখনও পর্যন্ত তাদের একমাত্র ড্র। গতবারের চ্যাম্পিয়নরা অবশ্য এই প্রথম ম্যাচ খেলবে বাইরে। এখনও পর্যন্ত তিনটি ম্যাচই ঘরের মাঠে খেলেছে এএফসি কাপের ফাইনালে খেলে-আসা বেঙ্গালুরু। তিনটি ম্যাচই জিতে রয়েছে গোল-পার্থক্যে লিগ তালিকার শীর্ষে। সুনীল ছেত্রী, সিকে বিনীতদের প্রথম বড় পরীক্ষা রবিবার।

    লাল-হলুদের কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান খুশি দলের খেলায়। ‘মানতে আপত্তি নেই, ম্যাচটা অত্যন্ত কঠিন হবে। কিন্তু যেভাবে আমাদের ফুটবলাররা খেলেছে গত দুটি ম্যাচে, সন্তুষ্ট’, বলেছেন মর্গ্যান। কোচের কথারই প্রতিধ্বনি রবিন সিংয়ের গলায়। ‘বাইরে পরপর দুটো ম্যাচ থেকে ৬ পয়েন্ট পেয়েছি। আমরা আত্মবিশ্বাসী। তিন পয়েন্টের জন্যই খেলব। তবে, বেঙ্গালুরুর মতো দলকে হারাতে মাঠে প্রচুর পরিশ্রম জরুরি।’

    অন্যতম বিদেশি ওয়েডসনকে নিয়ে কিছু প্রশ্ন উঠেছে ইস্টবেঙ্গলে। সোনি নর্দের হাইতি-সতীর্থ যতটা ভরসা দেবেন মনে করা হয়েছিল, প্রথম তিনটি ম্যাচের পর ততটা প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। রবিন অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন, ‘হয়ত কিছু সুযোগ নষ্ট করেছে। কিন্তু সেটাই ফুটবল। কখনও গোল পাবেন, কখনও পাবেন না।’ মর্গ্যানের কোচিংয়ের বৈশিষ্ট্য, বাড়তি নজর থাকে সেট পিস-এ। রবিবারের ম্যাচেও তাঁর অন্যথা হবে না। ইস্টবেঙ্গল শিবিরের একমাত্র চিন্তা, রক্ষণে অর্ণব মন্ডল তো চোট পেয়ে শুরু থেকেই খেলছিলেন না, এই ম্যাচে আনোয়ারকেও পাওয়া যাচ্ছে না, আগের ম্যাচে চোট পাওয়ায়। গুরবিন্দর ও বুকেনিয়ার ডিপ ডিফেন্সকে বাড়তি সতর্ক থাকতে হবে সুনীল-বিনীতদের বিরুদ্ধে।

    বেঙ্গালুরুর স্পেনীয় কোচ আলবের রোকার অবশ্য ভাল লাগেনি বারাসত মাঠের অবস্থা। কিন্তু মর্গ্যানের মতোই মেনে নিয়েছেন, ‘ম্যাচটা কঠিন হবে। ঘরের মাঠে খেলবে ইস্টবেঙ্গল।’ তাঁর দল ভালই। সবাই দৌড়চ্ছে, স্ট্রাইকাররা গোল পাচ্ছেন যেমন, মিডফিল্ডাররাও। বিশেষ করে বিনীত। আইএসএল থেকে শুরু হয়েছিল বিনীতের গোল-পাওয়া। কোচের মতে, ‘ভাল ফুটবলার। গোল করছে নিয়মিত। দায়িত্ব নিচ্ছে।’ এখনও পর্যন্ত এবারের আই লিগে একমাত্র হ্যাটট্রিকও এসেছে বিনীতের পা থেকেই।

    দুটি অ্যাওয়ে ম্যাচে জিতলেও প্রত্যাশিত ছন্দে পাওয়া যায়নি যেমন ইস্টবেঙ্গলকে, বেঙ্গালুরু প্রথম খেলবে অ্যাওয়ে ম্যাচে। একদিনের সিরিজের ফয়সালা হয়ে যাওয়ার পরও কলকাতার সব রাস্তা কি রবিবার ইডেনমুখী? নাকি, আই লিগের গুরুত্বপূর্ণ ‘জীবন্ত’ ম্যাচ দেখতে বারাসত ভরিয়ে তুলবেন লাল-হলুদ সমর্থকরা?

    No comments