• Breaking News

    ইস্টবেঙ্গলের চিন্তা, ওয়েডসনের চোট এবং প্লাজাকে নিয়ে অনিশ্চয়তা

    শান্তনু ব্যানার্জি


    পাহাড়ে আইজল এফসি-র কাছে এবারের আই লিগে একমাত্র হার। ইস্টবেঙ্গলের পরের ম্যাচ আবারও পাহাড়ে, লাজং এফসি-র বিরুদ্ধে। মাঝে বেঙ্গালুরুতে গিয়ে বেঙ্গালুরু এফসি-র বিরুদ্ধে জয়। গতবারের চ্যাম্পিয়নদের হারিয়েও কিন্তু ইস্টবেঙ্গলের কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান সেই সাফল্যের আনন্দে ডুবে থাকতে রাজি নন। ‘সামনের দিকে তাকাতে ভালবাসি। বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে গত ম্যাচে জিতেছি। কিন্তু ওটা এখন অতীত। পরের ম্যাচ নিয়ে ভাবা বেশি জরুরি।’

    মর্গ্যানের একমাত্র লক্ষ্য, সামনের প্রতিটি ম্যাচ থেকে যত বেশি সম্ভব পয়েন্ট পাওয়া। মঙ্গলবার সেন্ট্রাল পার্কে অনুশীলন ছিল ইস্টবেঙ্গলের। অনুশীলন শেষে মর্গ্যান জানিয়েছেন, ‘প্রতিটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। আর, প্রতিটি ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট পাওয়াই আমাদের লক্ষ্য।’

    ইস্টবেঙ্গলের চিন্তা, ওয়েডসনের চোট এবং প্লাজাকে নিয়ে অনিশ্চয়তা। মর্গ্যান মনে করছেন, ‘ওয়েডসনের চোট নিয়ে এই মুহূর্তে বলার কিছু নেই। যদিও ওর ছিটকে যাওয়াটা বড় ক্ষতি। আগামী দুই বা তিন ম্যাচে ওকে পাওয়া যাবে না।’ বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে ওয়েডসনের দুরন্ত গোলই ইস্টবেঙ্গলকে এগিয়ে দিয়েছিল শুরুতে। আরও সমস্যা, দলের স্ট্রাইকার প্লাজাকে নিয়েও অনিশ্চয়তা। মর্গ্যান জানিয়েছেন, ‘প্লাজা এখনও ম্যাচ-ফিট হওয়ার জন্য লড়ছে।’ ওয়েডসন নেই, প্লাজা অনিশ্চিত। কোচের মনে হচ্ছে, ‘এই ম্যাচগুলো রিজার্ভ বেঞ্চের ফুটবলারদের কাছে বড় সুযোগ। চ্যালেঞ্জও। নিজেদের প্রমাণ করতে হবে।’

    আই লিগের মতো ম্যারাথন লিগে শিরোপা অর্জনের কৃতিত্ব থেকে ইস্টবেঙ্গল কতটা দূরে? এই প্রসঙ্গে মর্গ্যানের মত, ‘এখনও অনেক দূরে ম্যাজিক ফিগার। সাতটা ম্যাচ বাকি। তার মধ্যে চারটি ম্যাচ কাছাকাছি। আর এই চারটি ম্যাচের ফলই ঠিক করে দেবে সব।’

    প্রসঙ্গত, এই চার ম্যাচ যথাক্রমে – ৪ মার্চ শিলং, ৭ মার্চ চার্চিল, ১২ মার্চ চেন্নাই ও ৯ এপ্রিল মোহনবাগানের বিরুদ্ধে ডার্বি। যার মধ্যে চার্চিল বাদ দিয়ে তিনটি ম্যাচই ‘অ্যাওয়ে’। স্বাভাবিকভাবেই চিন্তাও বেশি লালহলুদ কোচের।

    No comments