• Breaking News

    মর্গ্যানের দ্বিতীয় ইনিংসে লাজং-বিজয় এখনও অধরা

    কাশীনাথ ভট্টাচার্য ● শিলিগুড়ি


    এক বনাম চারের লড়াই। পয়েন্টের পার্থক্য ৮!

    ৮ ম্যাচে ২০ ইস্টবেঙ্গলের, সমান ম্যাচে ১২ শিলং লাজংয়ের। কিন্তু, ট্রেভর জেমস মর্গ্যানের দ্বিতীয় ইনিংসে লাজং-বিজয় এখনও অধরা।

    শিলিগুড়িতে টানা দ্বিতীয় ম্যাচ খেলছে ইস্টবেঙ্গল। মঙ্গলবার সন্ধেবেলা কাঞ্চনজঙ্ঘা ক্রীড়াঙ্গনের সামনে মাইকে প্রচার হচ্ছে ম্যাচের কথা, টিকিট কোত্থেকে পাওয়া যাচ্ছে, টিকিটের দাম কত, ইত্যাদি। ডার্বি ম্যাচ নিয়ে এভাবে প্রচারের দরকার হয়নি। কিন্তু, লাজং ম্যাচে পাহাড় থেকে তাদের সমর্থকরাও দলে দলে আসতেই পারেন।

    ক্যামেরুনের আসের পিয়েরিক দিপান্দা দিকা গতবার খেলেছিলেন ডিএসকে শিবাজিয়ান্সের হয়ে। ১৩ ম্যাচে করেছিলেন ৭ গোল। এবার ৮ ম্যাচেই সাত গোল করে এখন আই লিগের শীর্ষ গোলদাতা। শিলংকে চারটি ম্যাচ জেতাতে সবচেয়ে বেশি অবদান। স্বাভাবিকভাবেই বিপক্ষ দলের চিন্তায় এখন দিপান্দা।

    ইস্টবেঙ্গলের কোচ অবশ্য এভাবে আলাদা আলাদা করে কাউকে নিয়ে ভাবতে রাজি নন। ‘খেলাটা এগারর বিরুদ্ধে এগার জনের। এক-দুজনকে নিয়ে আলাদা করে ভাবতে হয়ত হয়ই, কিন্তু যদি কোনও ভাবনা থেকেও থাকে, মিডিয়ার কাছে আলাদা করে জানানো দরকারি নয়। লাজংয়ের খেলা টিভি-তে দেখেছি। প্রচুর দৌড়য়। ওদের আটকানো কঠিন। তবে, ফুটবলাররা তৈরি হয়েই মাঠে নামবে’, বলেছেন মর্গান।

    শিলংয়ের অনুশীলন নিয়ে সামান্য সমস্যা হয়েছিল। সোমবার বিকাল পাঁচটার সময় অনুশীলন করতে ডাকা হয়েছিল লাজংকে। তারপর, মঙ্গলবার সকাল আটটায়। যা নিয়ে বেশ ক্ষুব্ধ ছিলেন থাংবই সিংতো। ‘বারো ঘন্টার ব্যবধানে এভাবে অনুশীলন করা যায় নাকি? অনুরোধ করেছিলাম, বিকেল পাঁচটায় আবার অনুশীলনের সুযোগ দিতে। অভিযোগ করছি না, কিন্তু এত তাড়াতাড়ি কীভাবেই বা আবার অনুশীলনে নামানো যায় ফুটবলারদের?’

    তা ছাড়াও, আটটা থেকে অনুশীলন শুরু হওয়ার পর ন’টা বেজে যাওয়ার পরেই তাঁদের মাঠ থেকে বের করে দেওয়া নিয়েই খানিক সমস্যা হয়েছিল। পরে অবশ্য মিটেও যায়।

    ডার্বি ম্যাচ জিততে না পারলেও হারেনি। টানা আট ম্যাচ অপরাজিত থাকায় লাজংয়ের বিরুদ্ধে কি বাড়তি চাপ ইস্টবেঙ্গলে? বিশেষত, বড় ম্যাচের পর ম্যাচ বলেই? মর্গান মানতে রাজি নন।

    ‘শুনলাম বটে। কিন্তু ততটা ভাবছি না। লিগে এমনই হয়। পরপর খেলে যেতে হয়, তবুও থাকতে হয় নিজেদের সক্ষমতার শীর্ষে।’ অস্ট্রেলীয় বিদেশি ক্রিস পেইন এসে গিয়েছেন। মর্গান জানিয়ে দিয়েছেন, প্রথম এগারয় না থাকলেও, দলে থাকবেন। সম্ভবত শেষ দিকে তাঁকে নামানো হবে, ইস্টবেঙ্গলের যদি সব ঠিকঠাক চলে। না হলে, আগেও মাঠে এসে যেতে পারেন পেইন।

    আর, ইস্টবেঙ্গলেও চলে এল ‘ক্লাব বনাম দেশ’ বিতর্ক!

    রোওলিন বোর্জেস, রেমিও ফেরনান্দেস ভারতের জাতীয় দলে খেলেন। অথচ, ইস্টবেঙ্গলে সুযোগ পান না। মর্গান পরিষ্কার বলে দিলেন, ‘আমি ইস্টবেঙ্গলের দায়িত্বে, ইস্টবেঙ্গলের স্বার্থের কথাই ভাবি। ভারতীয় দল নিয়ে ভাবতে পারছি না। কী করলে আমার দলের সুবিধা হবে, একমাত্র বিবেচ্য আমার কাছে।’

    মর্গ্যানের এখন যা গেমপ্ল্যান তাতে মেহতাব হোসেন আছেন যখন, বোর্জেসের প্রথম এগারয় আসা মুশকিল। তেমনি রোমিওর জায়গায় অনূর্ধ্ব ২২ কোটায় নিখিল পূজারি খেলছেন। ফলে, ম্যাচে সুযোগ জুটছে না বোর্জেস-ফেরনান্দেসদের।

    বুধবার লাজংয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচেও মর্গান হঠাৎ তাঁর ঘোষিত নীতি ছেড়ে বেরিয়ে আসবেন, সম্ভাবনা কম!

    No comments