• Breaking News

    সন্তোষে পাঁচ বছরের খরা কাটাতে মরিয়া বাংলা

    শান্তনু ব্যানার্জি


    পাঁচ বছর সন্তোষ ট্রফি জিততে পারেনি বাংলা। শেষবার চ্যাম্পিয়ন ২০১০-১১ মরসুমে, আসামে অনুষ্ঠিত যে প্রতিযোগিতার ফাইনালে বাংলা ২-১ হারিয়েছিল মণিপুরকে। এবার কোচ মৃদুল বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশিক্ষণে পাঁচ বছরের খরা কাটানোই লক্ষ্য।

    বাংলার ম্যাচ


    ১২ মার্চ : বনাম চন্ডিগড়


    ১৪ মার্চ : বনাম সার্ভিসেস


    ১৬ মার্চ : বনাম গোয়া


    ২০ মার্চ : বনাম মেঘালয়


    এবার সন্তোষ ট্রফির আসর বসছে গোয়াতে। মূলপর্বের জন্য ২০ জনের বাংলা দল ঘোষিত হয়েছে। হাওড়া ময়দানে সন্তোষ ট্রফির জন্য বাংলার অনুশীলন চলছে জোর কদমে। বাংলার কোচ মৃদুল বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘সন্তোষ ট্রফিতে সবচেয়ে বেশিবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাই। কিন্তু শেষ পাঁচ বছর ধরে আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে পারিনি। এবার গোয়া থেকে ট্রফি আনাটাই লক্ষ্য।’ সেই লক্ষ্যে বাংলা দল গোয়ায় পৌঁছবে আগামী ১০ মার্চ।

    বাংলার সঙ্গে ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে চন্ডিগড়, গোয়া, মেঘালয় ও গতবারের চ্যাম্পিয়ন সার্ভিসেস। গ্রুপ বি-তে আছে কেরল, মহারাষ্ট্র, মিজোরাম, পাঞ্জাব ও রেলওয়েজ। ২৩ মার্চ সেমিফাইনাল। আর ৭১তম সন্তোষ ট্রফির ফাইনাল ২৬ মার্চ।

    বাংলার সন্তোষ ট্রফি অভিযানে যাঁরা সুযোগ পেলেন-

    গোলকিপার - শঙ্কর রায়, অঙ্কুর দাস, রণজিৎ মজুমদার,

    ডিফেন্ডার - অঙ্কিত মুখার্জি, সন্তু সিং, সুমন হাজরা, সামাদ আলি মল্লিক, রাণা ঘরামি (অধিনায়ক), প্রভাত লাকরা, মনোতোষ চাকলাদার, সৌরভ দাশগুপ্ত

    মিডফিল্ডার - সান্নিক মুর্মু, রোনাল্ডো সিং, বিশাল প্রধান, দেবাশিস প্রধান, প্রহ্লাদ রায়, মুমতাজ আখতার

    ফরোয়ার্ড - বসন্ত সিং, জিতেন মুর্মু, মনবীর সিং

    কোচ – মৃদুল বন্দ্যোপাধ্যায়

    No comments