• Breaking News

    মাজিয়া ম্যাচে শুরুতে বিদেশিহীন মোহনবাগান!

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    সামনে মাজিয়া, মনে কিন্তু আইজল!
    তার মানেই এএফসি কাপ গুরুত্বহীন নয়। এই ম্যাচটা নিয়ে শুধু ততটা মাতামাতি নয়!
    গ্রুপ লিগে ছ’টা করে ম্যাচ খেলতে হবে। মাজিয়া ম্যাচ তার মধ্যে তৃতীয়। আগের দু-ম্যাচে একটি জয় (আবাহনী), একটি হার (বেঙ্গালুরু)। ঘরের মাঠে মাজিয়ার বিরুদ্ধে খেলা হয়ে যাওয়ার পর হাতে আরও তিন ম্যাচ। মোহনবাগান তাই ঝুঁকি নিতে রাজি বুধবার। ঘরের মাঠে খেলা হলেও সর্বস্ব দিয়ে ঝাঁপাতে রাজি নয়।
    ২২ এপ্রিল আই লিগের ফাইনাল, মোহনবাগানের কাছে। খেলা আইজলে, জিতলে ট্রফি। ড্র করলে শেষ ম্যাচে ঘরের সমর্থকদের সামনে দ্বিতীয়বার আই লিগ জেতার সুযোগ। বাস্তববুদ্ধি বলে, বাড়তি মনোযোগ দাবি করছে আইজল ম্যাচ। সঞ্জয় সেন ব্যতিক্রম হবেন কেন? বুধ-সন্ধ্যায় রবীন্দ্র সরোবরে মাজিয়া ম্যাচে তাই সম্ভবত একজন বিদেশিকেও রাখছেন না প্রথম এগারয়।
    সোনি নর্দে, এদুয়ার্দো, ডাফি থাকবেনই না, বলেই দিলেন। কাতসুমি ১৮-জনের দলে থাকছেন। খুব দরকার ছাড়া নামবেন না মাঠে। রাতে মোহনবাগানের তরফে পাঠানো দলের তালিকাতেও কাতসুমি ছাড়া আর কোনও বিদেশির নাম নেই। চারজনকেই ২২ এপ্রিল আইজলে শুরু থেকে ছন্দে চাইছে মোহনবাগান, পরিস্থিতির বিচারে যা একশো শতাংশ ঠিক।
    'মাজিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচটা প্রতিযোগিতার ফল নির্ধারণ করে দেবে না, যা করে দিতে পারে আইজল ম্যাচ। সুতরাং, ভাবনায় তো থাকবেই আইজল। কিন্তু, আমরা যথাযথ গুরুত্ব দিয়েই ভাবছি মাজিয়া ম্যাচ নিয়ে। চারজনকে রাখছি না। সোনি, এদু, ডাফি আনাস আর দেবজিৎ। বাকি সবাই খেলবে। তিন পয়েন্টই লক্ষ্য’, বলেছেন সঞ্জয় সেন। তা, কোন কোচই বা খেলার আগের দিন বলবেন যে, তিন পয়েন্ট লক্ষ্য নয়!

    মাজিয়ার কোচ দেখেছেন আগে মোহনবাগানকে। খেলেছেনও, যখন তিনি দায়িত্বে ছিলেন ইয়াঙ্গনের। হেরেছিলেন সঞ্জয়ের মোহনবাগানের কাছেই। এখন সেই কোচ দল পাল্টে মাজিয়ায়। ‘চেনা প্রতিপক্ষ, ঠিক। আমার কাছে যেমন, সঞ্জয় সেনের কাছেও। বাকিটা তো মাঠেই।’

    এএফসি কাপের ম্যাচ বলেই সামান্য উৎসাহ থাকছে ঠিকই, কিন্তু, সবুজমেরুন শিবির জুড়ে ভাবনায় এখন স্বাভাবিকভাবেই শুধু আইজল!

    No comments