• Breaking News

    বিদেশিদের সংখ্যা বাড়ুক, চাইছেন না মুডি

    কাশীনাথ ভট্টাচার্য


    আইপিএল এমন এক প্রতিযোগিতা যেখানে কেন উইলিয়ামসের মতো ক্রিকেটারকেও অপেক্ষা করতে হয় রিজার্ভ বেঞ্চে! টম মুডি অবশ্য এব্যাপারে আলাদা করে ভাবতে রাজি নন। বরঞ্চ, মত দিচ্ছেন, বিদেশি ক্রিকেটারের সংখ্যা না-বাড়ানোর পক্ষেই।

    ‘দেখুন, এ তো হতেই পারে। বেন কাটিংকেও বসে থাকতে হয়েছিল, বেশিরভাগ ম্যাচেই খেলতে পারেনি। বিদেশি ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে এমন হতেই পারে। সবাইকে তো আর খেলানো যাবে না। উইলিয়ামসও জানে ব্যাপারটা। বুঝতে পারছে, কোন সিদ্ধান্তে দলের ভাল হবে। স্পোর্টিংলি নিয়েছে। খুব ভাল করেই জানে, সুযোগ আসবে ওর কাছেও।’

    সঙ্গে জুড়েও দিলেন মুডি, যে-কথাগুলো আরও ভাল। ‘ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর প্রথম একাদশে বিদেশিদের সংখ্যা বাড়ানোর দরকার এই মুহূর্তে আছে বলে মনে করি না। আইপিএল শুরুর সময় স্থানীয় ক্রিকেটার এবং বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে মানের তফাতটা বড় বেশি চোখে পড়ার মতো ছিল। এখন, এই ন’বছর পর, ততটা নেই আর। এটাই তো সাফল্য এই লিগের যেখানে ভারতীয় ক্রিকেটাররা উঠে আসছে। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ, এখানে ইন্ডিয়ান ক্রিকেটাররা যাতে আরও ভালভাবে উঠে আসতে পারে, নিশ্চিত করতে হবে সেটাই।’

    প্রসঙ্গত, আইপিএল-এ প্রথম একাদশে চারজন বিদেশি ক্রিকেটার খেলানো যায়। অস্ট্রেলিয়ায় বিগ ব্যাশ-এ সেই সংখ্যাটা কিন্তু মাত্র দুই!

    মুডি আরও খুশি, কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে খেলাটা বিকেলে শুরু হবে বলে। ‘রাতের খেলায় শিশির বড় বেশি সুবিধা করে দেয় পরে ব্যাট করা দলকে। দেখুন এটাই খেলার নিয়ম যে, টসে জিতবে একটা দল এবং সেই দলের হাতে থাকবে ঠিক করে নেওয়ার সুবিধা। কিন্তু, রাতের ম্যাচে সত্যিই শিশিরটা বড় ফ্যাক্টর হয়ে যায়, বিকেলের ম্যাচে যা হবে না। তাই, এই ম্যাচটা বিকেলে শুরু হচ্ছে, ভাল।’

    তাঁর অধিনায়ক এবং অস্ট্রেলীয় ওয়ার্নার দিন-দিন আরও পরিণত হচ্ছেন বলেও খুশি মুডি। ‘ক্রিকেটার হিসাবে ওর প্রতিভা নিয়ে সন্দেহ নেই। যত দিন যাচ্ছে, আইপিএল-এ অধিনায়ক ওয়ার্নারও অভিজ্ঞ হচ্ছে। প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে ওর কাজে, উপকৃত হচ্ছে দল। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এমনই হয়, ওয়ার্নারের ক্ষেত্রেও হচ্ছে। উঠে আসছে ভাল অধিনায়ক হিসাবেও।’

    অস্ট্রেলীয়দের সঙ্গে ভারতীয় ক্রিকেটারদের সম্পর্ক, টেস্ট সিরিজে ঝামেলা, এসবই কিন্তু অতীত এখন আইপিএল-গ্রহে!

    No comments