• Breaking News

    ‘রেড’ লোপেসই নায়ক!

    প্রথমার্ধেই দুটো লাল আর ছ’টা হলুদ কার্ড দেখিয়ে শতবার্ষিকী কোপা ফাইনালের


    প্রত্যাশিত নায়ক হয়ে উঠলেন ব্রাজিলের রেফারি এবের লোপেস


     

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    [caption id="attachment_377" align="alignleft" width="252"]Heber Lopes1 মেসিকেও রেহাই নেই। কোপা ফাইনালে[/caption]

    ২৭ ম্যাচে ব্রাজিলিয়ানের নামের পাশে ১৪ লাল কার্ড!

    শুধু ফাইনালের হিসেবই যদি ধরা হয়? তাঁর হাত থেকে বেরিয়েছে ২টো লাল। ৯টা হলুদ। ১৭টা ফাউল!

    এবের রোবের্তো লোপেস এখন দুই আমেরিকার সবচেয়ে জনপ্রিয় ‘ভিলেন’। যাঁকে ডাকাই হচ্ছে ‘রেড’ লোপেস বলে! শতবর্ষের কোপা ফাইনালকে রাঙিয়ে দিলেন ৪৬ বছরের ব্রাজিলিয়ান রেফারি। প্রথমার্ধেই দুটো লাল কার্ড দেখিয়ে। চিলির মার্সেলো দিয়াস এবং আর্জেন্তিনার মার্কোস রোখোকে।

    মাথা কামালেই কি পিয়েরলুইগি কলিনা হওয়া যায়? এই প্রশ্ন নতুন করে উঠেছে লোপেসের জন্য। বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা ইতালিয়ান রেফারি কলিনা অদ্ভুত দক্ষতায় নিয়ন্ত্রণে রাখতেন ম্যাচ। অবলীলায় সামলাতেন তারকাদের। লোপেস আবার মেসিদের ঠান্ডা রাখেন কার্ড দেখিয়ে। সামান্য ফাউল করলেই পকেট থেকে বেরিয়ে পড়ে কার্ড।

    ১৯৯৫ সালে রেফারিং শুরু করা লোপেস ২০০২ সাল থেকে ফিফা রেফারি। ব্রাজিলের ঘরোয়া ফুটবলে প্রচুর ম্যাচ খেলিয়েছেন। বিতর্ক তার থেকে বেশি। রেফারি হিসেবে তাঁর নাম শুনলেই ব্রাজিলের অনেক ক্লাবের ফুটবলার আতঙ্কে থাকেন।

    Heber Lopes2

    ২৮ মিনিটে মার্সেলো দিয়াস অথবা ৪৩ মিনিটে মার্কোস রোখোর লাল কার্ড নিয়ে চাইলেই নমনীয় হওয়া যেত। দিয়াসকে দ্বিতীয় হলুদ না-দেখালেও চলত যেমন, রোখোর ক্ষেত্রে তো ফাউলই হওয়ার কথা নয় যেহেতু বলেই লেগেছিল পা। কিন্তু, আর্তুরো ভিদালের ফন্দি ধরতে পারেননি। যে কোনও টিমের কাছে ফাইনাল ম্যাচ এক অন্য রকম আবেগের। তাই ফাইনালে তেমন কড়া হতে চান না রেফারিরা। লোপেস এ সব মানেন না। লিওনেল মেসিকেও বঞ্চিত করেননি। প্লে-অ্যাক্টিংয়ের জন্য দেখিয়েছেন হলুদ কার্ড। অন্য কোনও দিন, অন্য কোনও রেফারি হয়ত পেনাল্টিও দিয়ে দিতেন!

    ব্রাজিল গ্রুপ পর্ব টপকাতে পারেনি। তাতে কী, শতবর্ষের কোপাকে বর্ণময় করে দিলেন ব্রাজিলিয়ান এবের লোপেস!

     

    No comments