• Breaking News

    বিমানবন্দরে মানুষের ঢল, রাষ্ট্রপতির আর্জি ‘যেও না চলে’!

    0d286a6f-5b1e-48f8-aff3-79e7cf781af2রাইট স্পোর্টস ডেস্ক
    যেন স্বজন হারানো মিছিলে সামিল অসংখ্য মানুষ! পায়ে পা মিলিয়ে রাস্তায় নেমেছেন করুণ আর্তি নিয়ে!
    রাতের বুয়েনস আইরেস বিমানবন্দরে অঝোরে বৃষ্টি। বিমানবন্দর চত্বরের বাইরে হাজার হাজার ছাতা। অধীর অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে মানু্ষ— বিধ্বস্ত, নিঃস্ব লিওনেল মেসিকে দেখবে বলে। মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে যিনি ঘোষণা করে দিয়েছেন, আর্জেন্তিনার হয়ে আর খেলবেন না!
    চিলের কাছে আরও এক বার কোপা হেরে দেশে ফেরার পর মেসিময় সারা আর্জেন্তিনা। এলএম টেন জার্সি পরে বিমানবন্দরে হাজির সবাই। কেউ কেউ প্রতিবাদ মিছিল করে হাঁটা লাগিয়েছেন ফুটবল সংস্থার সদর দপ্তরের দিকে। কারও কারও হাতে বিশাল পোস্টার, ‘প্লিজ লিও, যেও না চলে!’ কেউ আবার লিখেছেন, ‘লিও, আমি তোমাকে আমার মায়ের থেকেও বেশি ভালোবাসি।’
    মেসিসহ পুরো দল যখন বিমানবন্দর ছেড়ে রওনা দেয়, কাতারে কাতারে মানুষ বৃষ্টিতেই ছুটতে শুরু করেন টিমবাসের দিকে। বাসে বসে মন খারাপের মাঝে মেসিও দেখেছেন সম্মিলিত এই আর্তির সুনামি।
    এর মধ্যে আবার দেশের প্রেসিডেন্ট মরিসিও মাক্রি খবর শুনে তড়িঘড়ি ফোন করেছিলেন মেসিকে। দীর্ঘক্ষণ কথা হয়েছে তাঁর সঙ্গে। আর্জেন্তিনার রাষ্ট্রপতি মেসিকে দেশের হয়ে খেলার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। মাক্রির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ‘প্রেসিডেন্ট ফোন করে মেসিকে বলেছেন, টিম কোপাতে খারাপ খেলেনি। আমি তোমাদের পারফরম‌্যান্সে গর্বিত। বাইরের লোক কী বলছে, সে সব শুনো না।’
    মেসি কী করবেন? আর্জেন্তিনার ফুটবল সংস্থার কর্তাদের হাতে কিন্তু খুব বেশি সময় নেই। মাস দুয়েক পর রাশিয়া বিশ্বকাপের যোগ্যতা নির্ণায়ক পর্বের ম্যাচ। সুয়ারেজের উরুগুয়ের বিরুদ্ধে। ওই ম্যাচে মেসি না খেললে কিন্তু বেশ চাপে পড়ে যাবে আর্জেন্তিনা।
    অনেকেই বলছেন, এত মানুষের আবেগমাখা আবেদন ফেলতে পারবেন না মেসি। আবার ফিরবেন নীল-সাদা জার্সিতে।

    No comments