• Breaking News

    সাবাইনা পার্কেও ক্যারিবিয়ানরা চুরমার অশ্বিন জাদুতে

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ‌: ১৯৬ (প্রথম ইনিংস)
    (ব্ল্যাকউড ৬২, স্যামুয়েলস ৩৭, কামিন্স ২৪ নট আউট, অশ্বিন ৫-৫২, সামি ২-২৩, ইশান্ত ২-৫৩)
    ভারত‌: ১২৬-১ (প্রথম ইনিংস)
    (রাহুল ৭৫ নট আউট, পূজারা ১৮ নট আউট, শিখর ২৭)


    c2163444-1d13-40ff-9a45-c84755e00f98রাইট স্পোর্টস ডেস্ক
    অ্যান্টিগার রুদ্র মূর্তির দর্শন মিলছে সাবাইনা পার্কেও! রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে থামানো যাচ্ছে না।
    আগের ম্যাচে দ্বিতীয় ইনিংসে একাই সাত উইকেট নিয়ে জিতিয়েছিলেন টিমকে। উসেইন বোল্টের দেশ কিংসটনের বাইশ গজে যে ছন্দে বল করছেন অশ্বিন, তাতে চেন্নাইয়ের অফস্পিনারের হাত ধরে এখন থেকেই জয়ের স্বপ্ন দেখা শুরু করে দিতে পারে বিরাট কোহলির টিম।
    অশ্বিন জাদুতেই প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেমে গেল মাত্র ১৯৬ রানে। ভারতীয় অফস্পিনার নিলেন ১৬ ওভার বল করে ৫৩ রান দিয়ে নিলেন ৫টা উইকেট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান জেরমাইন ব্ল্যাকউড আর মার্লন স্যামুয়েলসকে দিয়ে শুরু। পর পর তিনটে উইকেট নিয়ে ভেঙে দিলেন জেসন হোল্ডারের টিমের মিডল অর্ডার। শুরুতে অবশ‌্য ধাক্কাটা দিয়েছিলেন দুই পেস বোলার, ইশান্ত শর্মা ও মহম্মদ সামি। দু’জনেই দুটি করে উইকেট নেন। একটি উইকেট অমিত মিশ্রর।
    শুরুটা যদি অশ্বিনের হয়, বাকি সময় সাবাইনা পার্কের বাইশ গজের নায়ক লোকেশ রাহুল। আগের ম্যাচে সুযোগ পাননি। চোটের জন্য মুরলী বিজয় না খেলায় প্রথম একাদশে ঢুকেছেন শেষ মুহূর্তে। প্রথম দিনের শেষে ৭৫ নট আউট তিনি। অশ্বিন তো ম্যাচের পর বলেই দিয়েছেন, ‘লোকেশকে আমি আমি রান মেশিন বলে ডাকি। ও ক্রিজে থাকলে রান পাবেই। এটা কোনও আশ্চর্যের বিষয় নয়।’ যে ভাবে খেলছেন, তাতে সেঞ্চুরি বাঁধা। আর তা যদি করতে পারেন, পরের ম্যাচে টিমে ফেরা বেশ কঠিন হয়ে যাবে বিজয়ের পক্ষে।
    প্রথম দিনের শেষে ভারত ১২৬-১। শিখর ধাওয়ান (২৭) ফিরে যান শুরুতেই। রাহুলের সঙ্গে ক্রিজে চেতেশ্বর পূজারা (১৮ নট আউট)। ভারতীয় ব্যাটিংয়ের যা গভীরতা এবং হালফিলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলিংয়ের যা ফর্ম, তাতে আবার রানের পাহাড় গড়তে চলেছেন বিরাট কোহলিরা।
    ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে কিছুটা লড়েছেন জেরমাইন ব্ল্যাকউড (৬২) ও মার্লন স্যামুয়েলস (৩৭)। কিন্তু এ দিয়ে তো আর ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচ জেতার স্বপ্ন দেখা যায় না। বিরাটের ৪-০ জেতার স্বপ্নটা সত্যি হল বলে!

    No comments