• Breaking News

    রত্ন নঈম, মোহনবাগান দিবস উদযাপন এবার মোহনবাগান মাঠেই

    logo_mbc1রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    রুদ গুলিত এসেছিলেন। নিরাপত্তার কারণে তাই গতবার মোহনবাগান দিবস উদযাপিত হয়েছিল নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে। এবার আবার মোহনবাগান মাঠেই ফিরে আসছে সবুজ-মেরুন ক্লাবের সবচেয়ে উজ্জ্বল দিনের উৎসব। ১৯১১-র ২৯ জুলাই প্রথম ভারতীয় ক্লাব হিসাবে আইএফএ শিল্ড জেতার ১০৫ বছরে।

    মোহনবাগান দিবস উপলক্ষে সারা দিন ধরেই নানা অনুষ্ঠান ক্লাব প্রাঙ্গনে। গান গাইবেন শ্রীকান্ত আচার্য, ইমন চক্রবর্তী ও মুম্বই থেকে বিনোদ রাঠোড়। থাকবে তিনটি প্রদর্শনী ম্যাচ। মোহনবাগানের আকাদেমির বাচ্চারা খেলবে নিজেদের মধ্যে। ক্লাবের প্রাক্তনরাও খেলবেন আর একটি ম্যাচ। মাঝে ক্রীড়া সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে চিত্রতারকাদের প্রদর্শনী ম্যাচ।

    অনুষ্ঠানে মোহনবাগান রত্ন তুলে দেওয়া হবে সৈয়দ নঈমউদ্দিনের হাতে। ভারতীয় ফুটবলে শেষ বলার মতো সাফল্য ১৯৭০ এশিয়াডে ব্রোঞ্জজয়, যে-দলের সদস্য ছিলেন নঈম। বর্ণময় ফুটবল জীবন শেষে যিনি কোচ হিসাবেও যথেষ্ট সফল। কিন্তু, তাঁর কোচিং করানোর পদ্ধতি পছন্দ হয়নি কর্তাদের সঙ্গে অনেক ফুটবলারেরও। ফলে, খুব তাড়াতাড়িই সরে যেতে হয়েছে মাঠ থেকে। কলকাতার কোনও ক্লাব তাঁকে আর ডাকে না। তিনি চলে যান ঢাকায়, ব্রাদার্স ইউনিয়নে, কোচিং করাতে। আর মিল খুঁজে পান সদ্যপ্রয়াত অমল দত্ত-র সঙ্গে। ‘ওঁকেই ঠিকঠাক ব্যবহার করল না কলকাতা ময়দান, আমি আর কী-ই বা বলব’, ক্ষোভ থাকে না গোপন।

    মোহনবাগানের এই সম্মান দেওয়া নিয়ে গর্বিত। এত বড় ক্লাব সম্মান জানালে, বাড়তি আনন্দ হয় তাঁর, এখনও। ভারতীয় ফুটবলে তিনি একমাত্র যিনি অর্জুন ও দ্রোণাচার্য পুরস্কার পেয়েছেন। সত্তরোর্ধ নঈম এখনও নিজেকে বেঁধে রেখেছেন কড়া শাসনে। আর হায়দরাবাদ থেকে এসে বাংলার মানুষের মনের মণিকোঠায় স্থান করে নিয়েছেন আপন যোগ্যতায়, যে-দক্ষতাকেও সম্মানিত করা হবে শুক্রবার মোহনবাগান মাঠে।

    No comments