• Breaking News

    ৪৫-এ পা দিলেন সৌরভ

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    Sourav-Ganguly

    বছর কুড়ি আগের সেই দৃশ্য চোখে ভাসছে এখনও। বছর চব্বিশের এক যুবক হেঁটে যাচ্ছেন লর্ডসের বাইশ গজের দিকে…!

    এখনও স্মৃতিতে জ্বলছে, ওই লর্ডসেরই ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে জার্সি খুলে উড়িয়ে দিয়েছেন এক বাঙালি!

    এই তো ক’দিন আগের ঘটনা। জোহানেসবার্গে বিশ্বকাপ ফাইনালে টস করতে ধীর পায়ে পিচের দিকে হাঁটা লাগিয়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলি!

    কত টুকরো ঘটনা। কত গল্প। ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কত মধুর স্মৃতি। মন ভোলানো কভার ড্রাইভ। চোখধাঁধানো স্কোয়্যার কাট। গ্যালারির টংয়ে তুলে দেওয়া স্টেপ আউট। তখন তিনিই তো অফস্টাম্পের ‘ঈশ্বর’! ১৯৯৬ সালের লর্ডস থেকে যা শুরু। নাগপুরে ২০০৮ সালের নভেম্বরে গিয়ে যার শেষ!

    টানা চোদ্দটা বছর বাংলার আর বাঙালির ট্রেন্ড থেকেছেন যিনি, ৪৫ বছরে পা দিলেন সেই সৌরভ গাঙ্গুলি।

    বৃহস্পতিবার রাত ১২টা বাজার পর থেকে টুইটার আর ফেসবুকে যেন শুভেচ্ছার জোয়ার বইছে।‘দাদা’র জন্মদিনে আর এক বার একাত্ম সারা বাংলা। ‘দাদা ভালো থেকো’ থেকে শুরু করে, ‘তোমার সঙ্গে চিরকাল আছি’, বলার লোকের অভাব নেই।

    বেটিং কেলেঙ্কারিতে যখন বিধ্বস্ত তামাম ভারতীয় ক্রিকেট সমাজ, ক্যাপ্টেন হয়ে ঘুরিয়ে দিয়েছিলেন সন্দেহের চোখগুলো। অন্ধকার গলি থেকে তুলে নিয়ে এসে ভারতীয় ক্রিকেটকে আবার বসিয়ে দিয়েছিলেন সাফল্যের মসনদে। এখনও ঘুরে ফিরে উঠে আসে বিতর্কটা— কে ভারতের সর্বকালের সেরা ক্যাপ্টেন? মহেন্দ্র সিং ধোনি? নাকি, ভারতকে ‘হারব না’ দ্বীপে প্রায় পাকাপাকি ভাবে নিয়ে যাওয়া সৌরভ? তাঁর জমানাতেই কি হয়নি আজকের ধোনির এই সাফল্যের বৃক্ষরোপন?

    ক্রিকেট ছাড়ার পরও শচীন তেন্ডুলকারের মতোই প্রাসঙ্গিক থেকে গিয়েছেন সৌরভও। শচীন প্রশাসন থেকে সরিয়ে রেখেছেন নিজেকে। সৌরভ ঢুকে পড়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট কর্তাদের ড্রেসিংরুমে। বিরাট কোহলি-মহেন্দ্র সিং ধোনিদের কোচ ঠিক করছেন তিনি। একার হাতে সামলাচ্ছেন সিএবি। জগমোহন ডালমিয়ার যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে ঝলমলে মঞ্চে তুলে নিয়ে যাচ্ছেন বাংলার ক্রিকেটকে।

    বাঁ হাতি ব্যাটসম্যান ক্রিকেট জীবনে এক-একটা রান দিয়ে জুড়তেন বড় ইনিংস। নিজের জীবনেও তাই। ৪৫-এ পা দিয়ে সৌরভ ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছেন বৃহত্তর কোনও লক্ষ্যের দিকে!

    No comments