• Breaking News

    নেইমার বললেন ব্রাজিলের ওয়েবসাইটে, ‘দায়িত্ব ছেড়ে পালাইনি কখনও’

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    neymar-brasil-neymarjrnet

    সামনে অলিম্পিক। গোটা ব্রাজিল তাকিয়ে তাঁর দিকে। ব্রাজিল যে কখনও অলিম্পিক ফুটবলে সোনা পায়নি! সেই কারণেই বার্সেলোনা থেকে অনুমতি নিয়েছিলেন অলিম্পিকেই খেলার। বিশ্বকাপে তাঁর স্বপ্ন খুন হয়েছিল কলম্বিয়ার জুনিগার হাঁটুর আঘাতে। খেলতে পারেননি সেমিফাইনালে। এবার আর আক্ষেপ রাখতে রাজি নন। সর্বস্ব দিতে চাইছেন অলিম্পিকে। কথা বললেন গ্লোবো এস্পোর্তে ডট কম-এ। রাইট স্পোর্টস-এর পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল নির্বাচিত অংশ -

    প্রসঙ্গ – ব্রাজিলের কোচ বদল

    নেইমার – কিছু বলার নেই। দুঙ্গার প্রশিক্ষণে খেলেছি। যেভাবে খেলাতে চেয়েছিলেন, সবাই চেষ্টা করছিলাম। সেরাটাই দিয়েছিল সবাই। এখন তিতে এসেছেন। তিনিও নিজের সেরাটাই দেবেন, ব্রাজিলকে আবার ফুটবল বিশ্বে এক নম্বরে ফিরিয়ে আনতে।

    প্রসঙ্গ – তিতে-র সঙ্গে কথা

    নেইমার – এখনও বলার সুযোগ হয়ে ওঠেনি।

    প্রসঙ্গ – বিশ্বকাপ, কোপা থেকে বিদায়ের দিন মাঠে না-থাকা

    নেইমার – দায়িত্ব ছেড়ে পালাইনি কখনও। পালাই না। পরিস্থিতি এমন হয়েছিল, থাকতে পারিনি। বারবারই বলেছি, দেশের হয়ে খেলা এবং দেশের হয়ে জেতার আনন্দই আলাদা। কাঁধে এখন সবারই গুরুদায়িত্ব। দেশের মাঠে ইতিহাস লিখতে হবে, এমন কিছু করতে হবে যা আগে কখনও হয়নি।

    প্রসঙ্গ – বিশেষ নজর দিতে হবে…

    নেইমার – সব দিকেই। মাঠে নিজেদের আরও সংগঠিত করতে হবে। অর্গানাইজেশন এখন মূল কথা। মনে রাখতে হবে, এমন আসরে একটা ছোট ভুলই মারাত্মক হয়ে দেখা দিতে পারে। খেলার শুরুতে যেমন, শেষেও মাথা ঠাণ্ডা রাখা জরুরি।

    প্রসঙ্গ – অলিম্পিকের চাপ, প্রত্যাশার পাহাড়

    নেইমার – প্রত্যাশার চাপ তো থাকবেই। এটাকে খারাপ ভাবছি না। দেশের হয়ে অলিম্পিকে খেলা বিরাট সম্মান। গোটা দেশ তাকিয়ে আছে অলিম্পিকের দিকে। আমরা সবাই, আমাদের পরিবার, বন্ধুরা, দেশের নাগরিক। চোখের সামনে ইতিহাস হয়ে উঠতে দেখতে চাইছে আমাদের। গর্বের ব্যাপার।

    প্রসঙ্গ – অলিম্পিকের দায়িত্বে রজার মিকালে

    নেইমার – কথা হয়েছে। কোচ আর ফুটবলারের মধ্যে যেমন হয়। খুব বেশি কথা হয়নি। বিশেষ কিছুও নয়।

    প্রসঙ্গ – মিকালে সাধারণত পর্দার পেছনে-থাকা মানুষ

    নেইমার – খুব একটা পার্থক্য আছে কি? তিনি আমাদের তৈরি করে দেবেন, তাঁর ভাবনা অনুযায়ী খেলতে চেষ্টা করব আমরা মাঠে। তিনিই আমাদের প্রশিক্ষক, নেতা। মাঠের বাইরে থেকে নেতৃত্ব দেবেন আমাদের, নিয়ে যাবেন ঠিক পথে। তাঁর ভাবনাকে মাঠে ফুটিয়ে তোলার দায়িত্ব আমাদের।

    প্রসঙ্গ – দলবদলে বার্সেলোনা ছাড়ার কথা

    নেইমার – বহু ক্লাব এসেছিল। লোভনীয় প্রস্তাব নিয়ে। কিন্তু বার্সেলোনায় এখন খেলে যে আনন্দ পাচ্ছি, অন্য কোথাও গিয়ে পাব কিনা, নিশ্চিত নই। সতীর্থদের সঙ্গে দুর্দান্ত সম্পর্ক। এক্ষুনি অন্য কোথাও যাওয়ার কথা ভাবিইনি।

    প্রসঙ্গ – সানতোস থেকে বার্সেলোনায় আসা নিয়ে প্রচারমাধ্যমে বিতর্ক

    নেইমার – আমার তো মনে হয়, আবারও যদি এমন পরিস্থিতি হত, আবারও একই কাজ করতাম। বাবা বলেই দিয়েছেন, যা করেছিলেন, যেমনভাবে করেছিলেন, ঠিক করেছিলেন। মাঝে মাঝে প্রচারমাধ্যম যখন নানা গল্প তৈরি করে, খারাপ লাগে, বিরক্ত হই। কিন্তু, ওগুলো এখন ভুলে গিয়েছি।

    No comments