• Breaking News

    স্ট্রাইকার রুনিকেই চাইছেন মোরিনিও

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    mou1

    রায়ান গিগসের চলে যাওয়ায় তাঁর অন্তত কোনও হাত নেই, পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের নতুন কোচ হোসে মোরিনিও।

    ২৯ বছর পর ওল্ড ট্রাফোর্ড ছেড়েছেন অ্যালেক্স ফার্গুসনের অন্যতম প্রিয় ছাত্র গিগস। মোরিনিওর মতে, ‘গিগস সেই কাজটাই করতে চেয়েছিল, ক্লাব কর্তৃপক্ষ যে-কাজের ভার দিয়েছে আমাকে। এখন ক্লাব কর্তৃপক্ষ কেন আমাকে সেই কাজের ভার দিল আর গিগসকে দিল না সেটা ক্লাবই বলতে পারবে, আমি কী করে বলব?’

    ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম সরকারি সাংবাদিক সম্মেলনে এসে মোরিনিও আরও কয়েকটা ব্যাপার পরিষ্কার করে দিতে চেয়েছেন। তার মধ্যে এক, ওয়েন রুনিকে তিন ফরোয়ার্ড হিসাবেই খেলাবেন। দুই, নানারকমের কাজ করতে পারেন এমন ফুটবলারের চেয়ে বিশেষজ্ঞ ফুটবলারদের ওপর জোর দেবেন। তিন, পেপ গারদিওলার সঙ্গে আবার বিরোধিতায় জড়িয়ে পড়ার কোনও ইচ্ছে তাঁর নেই, অন্তত এই মুহূর্তে।

    রুনি প্রসঙ্গে তাঁর সাফ কথা, ‘ফুটবলে সবচেয়ে কঠিন কাজ হল, বিপক্ষের জালে বল ঢোকানো। যে এই কাজটা পারে তার গুরুত্ব তাই সবসময় বেশি। রুনি এটা পারত। তাই ওকে বিপক্ষের গোল থেকে ৬০ গজ দূরে রাখাটা আমার কাছে খুব একটা ভাল পরিকল্পনা নয়। বয়স হয়েছে, ঠিক আছে। তাই বলে গোল থেকে অত দূরে খেলবে কেন? পাস ভাল দেয়? মেনে নিলাম। তার জন্যও, মানে ভাল পাস দেওয়ার লোকও আছে। কিন্তু, বিপক্ষের জালে বল পাঠানোর জন্য রুনিকে চাই। ৯ বা ১০ নম্বর, সাড়ে নয় হলেও চলবে, কিন্তু কোনওভাবেই যেন ৬ বা ৭ নম্বর না হয়।’ রুনির সঙ্গে পাচ্ছেন ইব্রাহিমোভিচকে, যাঁর বয়স ৩৪। আবার তরুণ র‍্যাশফোর্ডও, মাত্র ১৮ যিনি। তাঁর দলে সবারই প্রয়োজন আছে, বলেছেন পর্তুগিজ কোচ।

    ম্যানচেস্টার এখন দৌড়চ্ছে পল পোগবাকে ফিরিয়ে আনতে জুভেন্তাস থেকে। মোরিনিও এসে আইভরি কোস্টের ডিফেন্ডার এরিক বেইলি আর পিএসজি থেকে ইব্রাহিমোভিচ সই করিয়ে ফেলেছেন। বোরুসিয়া ডর্টমুন্ড থেকে হেনরিক এমখিতারিয়ানের সই শুধু সময়ের ব্যাপার। পোগবাকে পেলেই আপাতত নিশ্চিন্ত হবেন মোরিনিও।

    No comments