• Breaking News

    বিরাটের ব্যাটে ক্যারিবিয়ান রূপকথা

    ভারত‌, প্রথম ইনিংস: ৩০২-৪ (প্রথম দিন)
    (বিরাট নট আউট ১৪৩, শিখর ৮৪, রাহানে ২২, অশ্বিন ২২ নট আউট, বিশু ৩-১০৮, গ্যাব্রিয়েল ১-৪৩)


    f5c29148-d193-44f8-ba2f-2538e4c4e896রাইট স্পোর্টস ডেস্ক
    ইতিহাস হাতড়ে মিলছে মাত্র দু’জন ভারতীয় ক্যাপ্টেনের নাম— কপিলদেব ও রাহুল দ্রাবিড়।
    ১৯৮২-৮৩ সালের ক্যারিবিয়ান ট্যুরে পোর্ট অফ স্পেনে কপিলের ছিল ১০০ নট আউট। তার বহু বছর পর ২০০৬ সালে দ্রাবিড় করেছিলেন ১৪৬।
    ভারতের ক্যাপ্টেন হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজে পা দিয়ে প্রথম ইনিংসেই সেঞ্চুরির মহাকাব্য একা তাঁরই— বিরাট কোহলি! বিশ্ব ক্রিকেটের ইতিহাস দেখলে, তিনি আট নম্বরে। ২০০৮ সালের ক্যারিবিয়ান সফরে অস্ট্রেলিয়ান ক্যাপ্টেন রিকি পন্টিংয়ের ১৫৮ পেরিয়ে যাওয়া স্রেফ সময়ের অপেক্ষা।
    যাঁর সঙ্গে তুলনা চলছে তাঁর, স্বয়ং ভিভ রিচার্ডসই বসে অ্যান্টিগাতে। বিরাট কোহলিকে ১৯৭ বলে ১৪৩ নট আউট দেখতে দেখতে কি নিজের সোনাঝরা দিনগুলোতে ফিরে গিয়েছিলেন ভিভ?
    বিরাট কোহলি মানে রোজ নতুন রেকর্ড। যেন সবাইকে ছাপিয়ে ক্রিকেট সাম্রাজ্যের ময়ূর সিংহাসনে বসবেন তিনি! বিরাট কোহলি মানে তৃপ্তির আকাশে নতুন নক্ষত্র। আগের প্রজন্মে ব্রায়ান লারা কিংবা শচীন তেন্ডুলকরকে দেখে থমকে যেত পথচলতি জনতা। বিরাটও তা-ই। মনে হবে, আহা, ছেলেটাকে আর একটু দেখি!
    বিরাট কোহলি মানে এক নতুন রূপকথা জন্ম!
    বিরাট যখন ক্রিজে এলেন, স্কোরবোর্ডে ২-৭৪। অ্যান্টিগার পিচকে দেখে সামান্য হলেও দুশ্চিন্তা হচ্ছে। বল লাফাচ্ছে, ঘুরছেও। বিরাট এসেই যে ভাবে শুরু করলেন, মনে হল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে কোনও কুড়ি-বিশের ম্যাচ খেলতে নেমেছেন ‘ভিকে’!
    ১৯৭ বলে ১৪৩ নট আউট। স্ট্রোকের ফুলঝুরি। মন ভোলানো কাট-ড্রাইভ। আর সেঞ্চুরির পর ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর মতো আস্ফালন। সব মিলিয়ে মেরেছেন ১৬টা চার। যে ভাবে ব্যাট করছেন, জীবনের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরিটাও পেয়ে যেতে পারেন দ্বিতীয়। বিধ্বংসী বিরাটের সামনে জোসন হোল্ডারের কোনও বোলারই দাগ কাটতে পারেননি। লেগস্পিনার দেবেন্দ্র বিশু একমাত্র ৩ উইকেট নিয়েছেন। শুরুতে গ্যাব্রিয়েল ফিরিয়েছিলেন ওপেনার মুরলী বিজয়কে।
    বিরাট যে দিন খেলেন, সে দিন বাকি সবই ফিকে। কে লড়াকু একটা হাফসেঞ্চুরি করেছেন, দেখার লোক পাওয়া যায় না। বিরাটের রোদ ঝলসানো দিনে শিখর ধাওয়ান তেমনই মেঘে ঢাকা তারা। বাঁ হাতি ওপেনার ৮৪ করে আউট হলেন। ফেলে এলেন সেঞ্চুরিটা। ম্যাচের পর তাঁকে আফসোস করতে দেখা গেল। হবেই তো, এমন নিরামিষ বোলিং কি রোজ পাওয়া যায়! প্রথম দিনের শেষে কোহলির জন্যই ভারত ৩০২-৪। বিরাটের সঙ্গে ক্রিজে অশ্বিন (২২ নট আউট)।
    ক্যাপ্টেন হওয়ার পর কি আগ্রাসন বেড়েছে কোহলির? ভারত অধিনায়ক হিসেবে ৫টা সেঞ্চুরি করলেন তিনি। সব ক’টাই দেশের বাইরে। মহম্মদ আজহারউদ্দিন ছাড়া এই রেকর্ড আর কারও নেই। টেস্টে এক ডজন সেঞ্চুরিও করে ফেললেন দিল্লির ছেলে।
    আজ কি প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিটা আসবে? টপকে যাবেন দ্রাবিড়, পন্টিংকে? এত অঙ্ক, এত হিসেব কোহলির মাথায় নেই!


    [gallery columns="4" ids="837,840,841,842"]

    No comments