• Breaking News

    রোমাঞ্চকর ম্যাচে সিটিকে বাঁচালেন নোলিতো

    কেল্টিক-৩ ‌: ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড-৩


    (দেমবেলে ৩’ ও ৪৭’, স্টার্লিং ২০-আত্মঘাতী)


    (ফার্নান্দিনহো ১১’, স্টার্লিং ২৮’, নোলিতো ৫৫’)


    আর্সেনাল-২ ‌: বাসেল-০


    (ওয়ালকট ৭’ ও ২৬’)




    [caption id="attachment_1819" align="alignleft" width="300"]কেল্টিকের উৎসব। ছবি—টুইটার কেল্টিকের উৎসব। ছবি—টুইটার[/caption]

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    বায়ার্ন মিউনিখের মতোই হাল হতে পারত ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডেরও!

    মরসুম শুরু হওয়ার পর থেকে একটাও ম্যাচ না হারার রেকর্ড নিয়ে মাদ্রিদে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলতে গিয়ে আতলেতিকোর কাছে হেরে বসেছে বায়ার্ন মিউনিখ।

    পেপ গুয়ার্দিওলার টিম হারল না ঠিকই, তবে তার যথেষ্ট সম্ভাবনা ছিল। হারতে হারতে ড্র করল কেল্টিকে কাছে। রোমাঞ্চিত ম্যাচে নোলিতোর গোলে ৩-৩ করে।

    অন্য ম্যাচে আর্সেনাল আবার ২-০ উড়িয়ে দিল বাসেলকে। ২৬ মিনিটের মধ্যে জোড়া গোল করেন থিও ওয়ালকট। দুটো গোলই পেলেন আলেক্সিস সাঞ্চেজের জন্য।

    স্কটল্যান্ডের ক্লাব কেল্টিক আগের ম্যাচে বার্সেলোনার কাছে ০-৭ হেরেছিল। কিন্তু সিটির মুখে নেমে তারাই অনবদ্য ফুটবল খেলল। বিশেষ করে মৌসা দেমবেলের দাপটে। কুড়ি বছরের ফরাসি ফুটবলার ঘরের মাঠে দুর্দান্ত ফুটবল খেললেন। তাঁর জোড়া গোলের জন্যই পেপের সিটিকে বারবার চাপে পড়তে হয় ম্যাচে।

    ১২৮ বছরের পুরোনো ক্লাবের কোচ লিভারপুলের প্রাক্তন ব্রেন্ডন রজার্স। টিমে তেমন নামী তারকা নেই। তবু সিটিকে প্রবল চাপের মধ্যে ফেলে দেয় কেল্টিক। ৩ মিনিটের মধ্যে কেল্টিককে এগিয়ে দেন দেমবেলে। আট মিনিটের মধ্যে আবার ১-১ করেন ফার্নান্দিনহো। খেলা যখন ধীরে ধীরে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার চেষ্টা করছে সিটি, তখনই আবার বিপত্তি। তিয়ের্নির একটা নীচু ক্রস ক্লিয়ার করতে গিয়ে গোলে ঢুকিয়ে দেন রহিম স্টার্লিং। একটা পরে তাঁরই প্রায়শ্চিত্ত। ১-২ থেকে স্টার্লিংই ২-২ করেন ২৮ মিনিটে।

    ম্যাচের উত্তেজনা তখনও বাকি ছিল অনেক। কেল্টিক আবার ঘুরে দাঁড়ায়। বিরতির পর পরই ফের নিজের দ্বিতীয় গোল দেমবেলের। ৩-২ যখন স্কোরলাইন, মনে হয়েছিল, চাপ সামলে এ বার হয়তো আর ফিরতে পারবে না সিটি। নোলিতোর গোলে ৫৫ মিনিটে ৩-৩ সিটির।

    No comments