• Breaking News

    পাকিস্তানকে হারিয়ে হকিতে এশিয়া-সেরা ভারত

    ভারত ৩    পাকিস্তান ২


    (রূপিন্দর ১৮, ইউসুফ ২৩, নিক্কিন ৫১)   (বিলাল ২৬, আলি ৩৮)


    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    [caption id="attachment_2165" align="alignleft" width="300"]ফাইনালে ভারতের নেতা রূপিন্দর। ছবি - ইন্টারনেট ফাইনালে ভারতের নেতা রূপিন্দর। ছবি - ইন্টারনেট[/caption]

    গ্রুপ লিগে হারিয়েছিল। ফাইনালেও ভারত হারাল পাকিস্তানকে, নির্ধারিত সময়েই। দ্বিতীয় খেতাব জিতল এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে, এবার রোল্যান্ট ওল্টম্যান্সের প্রশিক্ষণে।

    প্রথম পেনাল্টি কর্নার পেয়েছিল ভারত ৭ মিনিটে। কিন্তু রূপিন্দার নন, ড্র্যাগ ফ্লিক নিয়েছিলেন যশজিৎ। পোস্টের  খানিকটা বাইরে দিয়ে যায়। কিন্তু দ্বিতীয় পেনাল্টি কর্নার থেকে রূপিন্দর এগিয়ে দিয়েছিলেন ভারতকে। দ্বিতীয় কোয়ার্টারেই ইউসুফের ফিল্ড-গোল। সর্দার সিংয়ের থেকে বল পেয়েছিলেন রমনদীপ। তাঁর পাসে স্টিক ছুঁইয়ে বলের দিক পাল্টে দেন ইউসুফ। দুর্দান্ত গোলে ভারত এগিয়ে যায় ২-০।

    কিন্তু পাকিস্তানকে খেলায় ফিরিয়ে আনেন বিলাল, তিন মিনিটের মধ্যেই। প্রথম পেনাল্টি কর্নার পেয়েছিল পাকিস্তান। বিলাল ভুল করেননি। বিরতিতে ২-১ এগিয়ে মাঠ ছেড়েছিল ভারত। বিরতির পর দুর্দান্ত শুরু করেছিল ভারত। পাকিস্তান বলই পাচ্ছিল না প্রায়, তৃতীয় কোয়ার্টারের শুরুতে। কিন্তু পাকিস্তান ২-২ করে ফেলে, খেলার গতির বিরুদ্ধেই। সর্দারের পায়ে লেগে বল গিয়েছিল আলি শানের কাছে, বক্সের মধ্যে। ভারতীয়রা বোধহয় এক সেকেন্ডের জন্য ইতস্তত করেছিলেন, আলি শানের শট সোজা গোলে। পরের মিনিটেই রমনদীপ গোলের দাবি জানালেও ভিডিও রেফারেল-এ দেখা যায়, বল রমনদীপের স্টিক ছোঁয়নি।

    ভারত আবার এগিয়ে যায়, শেষ কোয়ার্টারে ৫১ মিনিটে। নিক্কিন বাঁদিক দিয়ে এগিয়ে এসে শট নিয়েছিলেন যা পাকিস্তানি রক্ষণকে চিরে সোজা গোলে যায়। রমনদীপ সামনেই ছিলেন, স্টিক ছোঁয়াতেও চেয়েছিলেন। লাগেনি, তাতে অসুবিধাও হয়নি। গোলের ঠিক আগে নিক্কিন আরও একটি সুযোগ পেয়েছিলেন দেশকে এগিয়ে দেওয়ার। সে বার সুযোগ হারানো পুষিয়ে দেন, তৃতীয় গোল করে। তখনও মিনিট নয় বাকি। পাকিস্তান আক্রমণে ফিরেছিল। এক-আধবার ভারতীয় রক্ষণ সহজেই বলের দখল হারালেও, পাকিস্তান সুবিধা করতে পারেনি আর। গত দুবারের চ্যাম্পিয়নরা শেষ পর্যন্ত হারল ২-৩।

    এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি প্রথমবারের পর চতুর্থ বছরে আবার জিতল ভারত, ফাইনালে রূপিন্দরের নেতৃত্বে। আয়োজক মালয়েশিয়া ব্রোঞ্জ পেল দক্ষিণ কোরিয়াকে হারিয়ে।

    No comments