• Breaking News

    ১০ বছর, ৫১ ম্যাচ, বাছাইপর্বে অপরাজিত ইতালি!

    ইতালি বনাম স্পেন, আজ রাত ১১-৩০


    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    italy-spain

    মোট খেলা ৩১। স্পেন জিতেছে ১১, ইতালি ৯। বাকি ১১ ড্র।

    আজ রাত সাড়ে এগারটায় দক্ষিণ ইউরোপের দুই সেরা ফুটবল-শক্তি আবার মুখোমুখি। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে পৌঁছনোর লক্ষ্যে।

    উয়েফা-র গ্রুপ জি-তে আর সঙ্গে আছে ম্যাসিডোনিয়া, লিচেনস্টাইন, ইজরায়েল, আলবানিয়া। নিশ্চিত যে, ইতালি আর স্পেনই থাকবে বাছাইপর্বের লিগ পর্যায় শেষে প্রছম দুই স্থানে। উয়েফার নিয়ম, সেরা দল সরাসরি পৌঁছবে বিশ্বকাপে। আর গ্রুপে রানার্স হলে, নয় গ্রুপের আট সেরা রানার্স দলের মধ্যে থাকলে প্লে অফ খেলে ও জিতে পৌঁছতে হবে রাশিয়ায়। তাই, এই ম্যাচের গুরুত্ব বেশি। যারা জিতবে, এগিয়ে যাবে সরাসরি রাশিয়ার দিকে।

    জুভেন্তাস স্টেডিয়ামে এই ম্যাচের আগে জুন মাসে শেষবার দেখা। ২০১৬ ইউরোর প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে। ইতালি জিতেছিল ২-০। টানা তিনবার ইউরো জয়ের স্বপ্ন শেষ স্পেনের। ইতালিও অবশ্য আর একটাই ম্যাচ খেলেছিল তারপর। কোয়ার্টার ফাইনালেই হেরে যায় জার্মানির কাছে টাইব্রেকারে, প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে প্রথমবার। তারপর, দুই দেশেরই কোচ বদলেছে। দেল বস্কের জায়গায় স্পেনে এসেছেন খুলেন লোপেতেগি, ইতালিতে আন্তোনিও কোন্তের জায়গা নিয়েছেন জিয়ামপিয়েরো ভেনতুরা। দুই কোচেরই দ্বিতীয় প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ, দায়িত্বে আসার পর।

    স্পেন বাছাইপর্ব শুরুই করেছিল লিচেনস্টাইনকে ৮ গোল দিয়ে। দিয়েগো কোস্তা, যাঁকে ইউরোয় পাওয়া যায়নি, এবার আছেন। কিন্তু, লোপেতেগি জমানায় জায়গা হয়নি কাসিয়াসের, যা শুনে ইতালির জিয়ানলুইগি বুফোঁর মন্তব্য, ‘বুঝতে পারছি, আমাদের দিন শেষ হয়ে আসছে ক্রমশ।’ স্পেনের জাতীয় দলে কাসিয়াস নেই, মানিয়ে নিতে সময় তো লাগবেই। তাঁর পরিবর্ত দাভিদ দে খেয়া অবশ্য ইউরোয় ইতালির বিরুদ্ধে প্রথম পোস্টেই গেল খেয়েছিলেন!

    ভেনতুরা যখন স্পেনের বিরুদ্ধে খেলার জন্য ইতালি দল বেছে নিয়েছিলেন, মারিও বালোতেলি তখনও লিভারপুল থেকে ছাড়া পাননি। অথচ, গত পাঁচ ম্যাচে ৬ গোল মারিও-র নামে! গিয়েছেন নিসে-তে, ছন্দে আছেন। কিন্তু ভেনতুরার মনে হয়েছে, আরও পরিণত হতে হবে মারিওকে। আর সিরি আ-তে যে-ফরোয়ার্ডের নামে শেষ ৩৫২ মিনিটে ৬ গোল ও ৪ অ্যাসিস্ট, দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেই ফ্রান্সেসকো তোত্তির বয়স ৪০, জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়ে ফেলেছেন!

    উঠে আসছে দুই প্রজন্ম, দুই দেশেই। আজুরি ও লা রোখা-র এই লড়াই নিজেদের নতুন করে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য মাথায় রেখেও। ফাব্রেগাস-পেদ্রোদের নেননি যেমন লোপেতেগি, কিয়েলিনিকে পাচ্ছে না ইতালিও। কিন্তু, এই ম্যাচে কে আছেন আর কে নেই নিয়ে কার মাথাব্যথা!

    ইতালি গত দশ বছর এবং ৫১ বাছাইপর্বের ম্যাচে হারেনি। দেশের মাঠে নিশ্চিতভাবেই এই রেকর্ড ধরে রাখতে চাইবেন ভেনতুরা।

    No comments