• Breaking News

    ‘ঘরের মাঠে খেলুন বা বাইরে, ফুটবল একই থাকে', বলছেন মোলিনা

    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    ????????????????????????????????????

    হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগের তৃতীয় মরসুমে কেরালা ব্লাস্টার্স প্রথম ম্যাচ খেলবে নিজেদের ঘরের মাঠে। নতুন কোচ স্টিভ কোপেল অনেকগুলি কারণে তাকিয়ে আছেন জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে আতলেতিকো দে কলকাতার বিরুদ্ধে বুধবারের এই ম্যাচের দিকে।

    কেরালা ব্লাস্টার্সের দায়িত্ব নেওয়ার সময় থেকেই ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের এই প্রাক্তন উইঙ্গার শুনে এসেছেন কোচির এই স্টেডিয়ামের শব্দব্রহ্মের কথা। স্টেডিয়ামে ভক্তদের সেই আচরণ এবার স্বচক্ষে দেখতে চান কোপেল।

    ‘ফুটবল খেলাটা বিশ্বজুড়ে আরও জনপ্রিয় হচ্ছে স্টেডিয়ামের ভেতরের এই পরিবেশের জন্যই। ভারতে পা রাখার দিন থেকে শুনে আসছি এই স্টেডিয়ামের দর্শকদের কথা। তাই অধীর আগ্রহে তাকিয়ে আছি,’ জানিয়েছেন কোপেল। তাঁর দল এখানে খেলবে এবারের দ্বিতীয় ম্যাচ হিরো আইএসএল-এ প্রথমবারের চ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে।

    প্রথম ম্যাচে কেরল হেরে গিয়েছিল নর্থইস্ট ইউনাইটেডের কাছে, উদ্বোধনী ম্যাচে, গুয়াহাটিতে। দলের খেলা তেমন ভাল হয়নি। কেরলের কোচ স্বীকার করেছেন, দল এখনও প্রত্যাশামতো খেলতে শুরু করেনি। খুঁজে পেয়েছেন কারণও, গুয়াহাটি থেকে শূন্যহাতে ফেরার। খুব তাড়াতাড়ি বলের দখল হারানো।

    ‘বারবার বলের দখল হারিয়েছি। হয়ত প্রথম ম্যাচ বলেই স্নায়ুর চাপ ছিল। হয়ত প্রথম খেলাটাই অ্যাওয়ে হওয়ার বাড়তি চাপ। কিন্তু ঘরের মাঠে নিজেদের সমর্থকদের সামনে আরও ভাল খেলতেই হবে। বলের দখল রাখতে হবে,কারণ বল নিজেদের দখলে থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ,’ বলেছেন কোপেল।

    মাঠে হাজার পঞ্চাশের গ্যালারির গর্জন সঙ্গে থাকলেও প্রাক্তন চ্যাম্পিয়ন আতলেতিকো দে কলকাতার বিরুদ্ধে কাজটা সহজ হবে না কেরলের। ঘরের মাঠে কলকাতা গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইয়িনের বিরুদ্ধে পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যম্ত ২-২ শেষ করেছিল তাদের প্রথম ম্যাচ।

    এবার কলকাতাকেও খেলতে হবে অ্যাওয়ে ম্যাচ। যদিও কোচ হোসে মোলিনা মনে করছেন না, দলের খেলা পাল্টাবে তাতে।

    ‘ঘরের মাঠে খেলুন বা বাইরে, ফুটবল একই থাকে। পরিকল্পনাও সেই একই। বলের দখল রাখতে হবে, রক্ষণে জোর দিতে হবে, জেতার চেষ্টাও করতে হবে। আমাদের কৌশল বিশেষ পাল্টাচ্ছে না,’ দাবি স্পেনীয় কোচের।

    মোলিনাকে মনে করিয়ে দিতে হয়নি যে, মাঠে ১১ জন কেরালা ব্লাস্টার্স ফুটবলারের পাশাপাশি ৫০ হাজারের গ্যালারির বিরুদ্ধেও খেলতে হবে তাঁর দলকে। উল্টে, তিনি দলের ফুটবলারদের সামনে চ্যালেঞ্জ রেখেছেন, হাজার পঞ্চাশেকের এই গ্যালারির ভয়াবহ চিৎকারের মধ্যেও নিজেদের খেলা ঠিকঠাক খেলার।

    ‘জানিই তো, মাঠের দুর্দান্ত পরিবেশের কথা। ৫০ হাজার সমর্থক থাকবে যারা সমর্থন করবে নিজেদের প্রিয় দলকে। কিন্তু এমন সমর্থনের মাঝে ভাল খেলাটাও তো ফুটবলারদের কাছে বিরাট সুযোগ,’ মনে করছেন মোলিনা।

    আতলেতিকো দে কলকাতা এই ম্যাচেও পাচ্ছে না তাদের ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার বোতসোয়ানার ওফেন্তসে নাতো-কে। চোট এখনও সারেনি তাঁর। পাবলো গালার্দোরও পরিবর্ত খুঁজে পায়নি দল।

    No comments