• Breaking News

    ফোরলানের পেনাল্টিতে তিন পয়েন্ট মুম্বইয়ের

    মুম্বই সিটি এফসি ১                  নর্থইস্ট ইউনাইটেড এফসি ০


    (ফোরলান ৫৬, পেনাল্টি)               


    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    [caption id="attachment_1909" align="alignleft" width="300"]পেনাল্টি থেকে সুব্রত পালকে পরাস্ত করে গোল দিয়েগো ফোরলানের। ছবি - আইএসএল পেনাল্টি থেকে গোল ফোরলানের। ছবি - আইএসএল[/caption]

    ঘরের মাঠেও জিতেই শুরু করল মুম্বই সিটি এফসি। মহারাষ্ট্রের বড় ম্যাচে পুনেকে হারানোর পর এবার জিতল হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগের তৃতীয় মরসুমে প্রথম দুটি ম্যাচ জিতে শীর্ষে থাকা নর্থইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে। দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট এবং ১৮০ মিনিটে একটিও গোল না-খাওয়া – তৃতীয় আইএসএল-এ শুরুটা ভালই হল রণবীর কাপুরের দলের।

    প্রথম ম্যাচে পুনের বিরুদ্ধে গোলের পাস বেরিয়ে এসেছিল মুম্বইয়ের মার্কি ফুটবলার দিয়েগো ফোরলানের পা থেকে। দ্বিতীয় ম্যাচে এল পেনাল্টি থেকে একমাত্র গোল। নিজেদের বক্সে অনাবশ্যক পাসে পরিস্থিতি বিপজ্জনক করে তুলেছিল নর্থইস্ট। রিগানের চ্যালেঞ্জে মুম্বইয়ের প্রণয় হালদার পড়ে গিয়েছিলেন বক্সে। রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত নেন। নিজের আন্তর্জাতিক জীবনে ফোরলান বহুবার দলের প্রয়োজনে এগিয়ে এসেছিলেন পেনাল্টি নিতে। এবারও পিছিয়ে থাকেননি। যদিও তাঁর শটে আঙুল লাগাতে পেরেছিলেন গতবার মুম্বইয়ে থাকা এবার নর্থইস্টের গোলরক্ষক সুব্রত পাল। কিন্তু, বল বাইরে পাঠাতে পারেননি। মুম্বই এগিয়ে যায় ৫৬ মিনিটে, এবারের আইএসএল-এ তাঁদের মার্কি ফুটবলারের প্রথম গোলে।

    ম্যাচে অবশ্য দুই দলই আক্রমণে এসেছিল বারবার। বিশেষ করে গোল খাওয়ার পর এবং ম্যাচের শেষ দিকে নর্থইস্ট। যদিও কাঙ্ক্ষিত গোল পায়নি, নিজেদেরই ব্যর্থতায়। যেমন, ৪০ মিনিটে গোল করা উচিত ছিল কাতসুমি ইউসার। ভেলেজের পাস থেকে একেবারে ফাঁকায় পেয়ে গিয়েছিলেন জাপানি ফুটবলার। ডান পায়ের শট, রাখতে পারেননি তিনকাঠিতে। নর্থইস্টকে প্রথম ম্যাচে জয় এনে দিয়েছিল কাতসুমির গোল। এবার পারেননি এগিয়ে দিতে দলকে, তৃতীয় ম্যাচে। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে সেই ভেলেজের পাস থেকেই বল পেয়ে গিয়েছিলেন এমিলিয়ানো আলফারো। কিন্তু তাঁর শট গোইয়ানের গায়ে লেগে বাইরে যায়।

    প্রথমার্ধেই পরপর দুটি পেনাল্টির আবেদন ছিল মাঠের দুই প্রান্তে। রবিন গুরুং ফেলে দিয়েছিলেন গোইয়ানকে, উল্টো দিকে শেহনাজের ট্যাকলে আলফারো। কিন্তু রেফারি কোনও আবেদনেই সাড়া দেননি।

    দ্বিতীয়ার্ধে গোল খেয়ে তেড়েফুঁড়ে উঠেছিল নর্থইস্ট, নিজেদের দুর্দান্ত শুরু ধরে রাখতে। ঘরের মাঠে পরপর দুটি ম্যাচ জিতে আত্মবিশ্বাসে টগবগে নর্থইস্টের আক্রমণ বারবার আছড়ে পড়েছিল মুম্বই সিটির বক্সে। কিন্তু গোলমুখ খুলেও গোল পাওয়া যায়নি মু্ম্বই-এর রক্ষণের সতর্কতায় এবং নিজেদের স্ট্রাইকারদের ব্যর্থতায়।

    এক সপ্তাহে তিনটি ম্যাচ খেলল নর্থইস্ট। তৃতীয় আইএসএল শুরু হয়েছিল ১ অক্টোবর, গুয়াহাটিতে। ৭ অক্টোবর এবং তৃতীয় ম্যাচ খেলল নর্থইস্ট। ক্লান্তি কারণ হতেই পারে, কিন্তু আইএসএল-এ এমনই নিয়ম। তাঁদের পর্তুগিজ কোচ ‘প্রোফেসর’ নেলো ভিনগাদা নিশ্চিতভাবেই খুশি হবেন না। বিশেষ করে পরপর দুটি ম্যাচ জিতে দুর্দান্ত শুরুর পর, বাইরের মাঠে এসেই হেরে গিয়ে। কিন্তু ফুটবল এমনই। মুম্বই সিটি-র কোচ আলেকজান্দ্রে গিমারায়েস আবার টানা ঘরে-বাইরে জয় পেয়ে উচ্ছ্বসিত। তবে, ১৪ ম্যাচের গ্রুপ-লিগে এখনও অনেকটা পথ যাওয়া বাকি দুই দলেরই!

    No comments