• Breaking News

    নর্থইস্টকে হারিয়ে চেন্নাই এখন তৃতীয়

    নর্থইস্ট ইউনাইটেড ০ চেন্নাইয়িন এফসি ১
    (সুক্কি ৪৯)


    screen-0আইএসএল মিডিয়া রিলিজ



    এফসি গোয়ার পর নর্থইস্ট ইউনাইটেড। পরপর দুটি ম্যাচ জিতে গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইয়িন এফসি খেতাব ধরে রাখার দিকে এগোতে শুরু করল ধীরে কিন্তু নিশ্চিত পদক্ষেপে। আর, নিজেদের মাঠে দুর্দান্ত জনসমর্থন পেয়েও নর্থইস্ট ইউনাইটেড এফসি হেরে গিয়ে পিছিয়ে পড়ল খানিকটা।
    ঘরের মাঠে পরপর দুটি ম্যাচ জিতে তৃতীয় হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগ শুরু করেছিল জন আব্রাহামের নর্থইস্ট। কিন্তু গুয়াহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক স্টেডিয়ামে প্রথমবার চেন্নাইয়িনের কাছে হার স্বীকার করতে হল তাদের। প্রথম দুবছরেই চেন্নাইকে হারালেও এবার মার্কো মাতেরাজ্জির দল তিন পয়েন্ট নিয়ে ফিরল গুয়াহাটি থেকে।
    ম্যাচের একমাত্র গোল ইতালীয় সুক্কির। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে, ৪৯ মিনিটে, দুরন্ত গোল। সিয়াম হাঙ্গাল বল তুলে দিয়েছিলেন বক্সে। ডানপায়ে জোরালো ভলি নেন সুক্কি, বল মাটিতে পড়তে না দিয়ে। নর্থইস্টের গোলরক্ষক সুব্রত পাল ঝাঁপিয়ে বলে হাত লাগিয়েও গোলের বাইরে রাখতে পারেননি। গোটা ম্যাচে সুক্কিকে আর তেমন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে বিশেষ দেখা যায়নি। কিন্তু সেন্টার ফরোয়ার্ড হিসাবে নিজের কাজ ঠিক সময়ে করে দিয়ে যান ইতালীয় ফুটবলার।
    তার আগে প্রথমার্ধে অন্তত দুবার নর্থইস্টের নিশ্চিত পতন রোধ করেছিলেন সুব্রত। একবার ১৭ মিনিটে সুক্কির পা থেকে, আর দ্বিতীয়বার পেলুসোর জোরালো ফ্রি কিক সরাসরি আটকে। সেই বল আবার ফিরে এসেছিল খেলায়, কিন্তু হ্যান্স মুল্ডার ফিরতি বলে হেড রাখতে পারেননি তিনকাঠিতে।
    ৬৫ মিনিটে বার্নার্দ মেন্দির জন্য বেঁচে যায় চেন্নাই। এবারের আইএসএল-এর সর্বোচ্চ গোলদাতা আলফারো বল নিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন, গোলে শট নিতে যাওয়ার মুহূর্তে পেছন থেকে মেন্দি বাঁ পা বাড়িয়ে ট্যাকল করে বল সরিয়ে দেন। পেনাল্টি বক্সের মধ্যে এমন ট্যাকল বুঝিয়ে দেয়, ডিফেন্ডার হিসাবে ফরাসি ফুটবলারের জাত। প্রথমার্ধেই হলুদ কার্ড দেখে ফেলেছিলেন। ওই জায়গায়, ছ’গজের বক্সে পেছন থেকে ফাউল মানে সরাসরি লাল কার্ডের সম্ভাবনা, পেনাল্টির তো বটেই। কিন্তু, মেন্দির ট্যাকল নিখুঁত। তাঁর কোচ, মাতেরাজ্জি, যিনি নিজেও ডিফেন্ডার ছিলেন, নিশ্চিতভাবেই খুশি হবেন এমন ট্যাকল দেখে। সেই কারণেই ম্যাচের নায়কও হলেন মেন্দি।
    ওই একবারই নয়, বারবারই পরে মেন্দিসহ চেন্নাই রক্ষণকে সতর্ক থাকতে হল। শেষ দিকে মিনিট ১৫ নর্থইস্ট সর্বস্ব দিয়েই চেষ্টা করেছিল, ঘরের মাঠে নিজেদের এই মরসুমের অপরাজিত রেকর্ড ধরে রাখতে। কিন্তু, গোল আসেনি গোলমুখে ফরোয়ার্ডদের অবিশ্বাস্য ব্যর্থতায় এবং চেন্নাইয়ের নিখুঁত রক্ষণে।
    ৬ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থেকে গেল নর্থইস্ট, হেরেও। কিন্তু বিরাট লাফ দিল চেন্নাইয়িন। ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ছিল ষষ্ঠ স্থানে। গুয়াহাটিতে জয়ের ফলে ৭ পয়েন্ট নিয়ে উঠে এল তৃতীয় স্থানে, নর্থইস্ট ও মুম্বইয়ের ঠিক পেছনে। নর্থইস্ট খেলেছে ৬ ম্যাচ, মুম্বই ৫ ম্যাচ। সবে ৪ ম্যাচ খেলল কিন্তু গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। অর্থাৎ, শুরুর দু-ম্যাচে কাঙ্ক্ষিত ফল না-পেলেও পরের দুটি ম্যাচেই পুষিয়ে নিল চেন্নাইয়িন।

    No comments