• Breaking News

    কবাডিতে ইরানকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারত, টানা তিনবার

    14813475_10154504116628820_1835946553_nরাইট স্পোর্টস ডেস্ক
    তিনে তিন ভারতের! তৃতীয়বারও কবাডি বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন ভারত। আগের দুবারের মতো এবারও ফাইনালে ইরানকেই হারিয়ে, ৩৮-২৯ পয়েন্টে।
    আন্তর্জাতিক কবাডি ফেডারেশনের উদ্যোগে আয়োজিত তৃতীয় বিশ্বকাপের আসর বসেছিল এবার আমেদাবাদে। দুটি গ্রুপে বিভক্ত ছিল ১২ দেশ। ভারতের গ্রুপে ছিল দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, আর্জেন্টিনা ও ইংল্যান্ড। অন্য গ্রুপে ইরান, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র, থাইল্যান্ড, কেনিয়া, জাপান ও পোল্যান্ড।
    নিয়ম ছিল, দুটি গ্রুপের প্রতম ও দ্বিতীয় দল সেমিফাইনালে খেলবে। দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে হেরে শুরুর পর দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল ভারত। বাকি চারটি ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালে থাইল্যান্ডকে ৭৩-২০ হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছেছিল ভারত। অন্য দিক থেকে ইরান সেমিফাইনালে প্রচুর লড়াই করে দক্ষিণ কোরিয়াকে হারিয়েছিল ২৮-২২ পয়েন্টে।
    আমেদাবাদের ট্রান্সস্টেডিয়া এরিনায় ফাইনালে ফেবারিট ছিল ২০০৪ ও ২০০৭ বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ভারতই। কিন্তু, ইরান শুরু করেছিল ভাল। ৬ পয়েন্টে এগিয়েও ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে ভারত কোনও সুযোগ দেয়নি তাদের। ৮ পয়েন্টে এগিয়ে যাওয়ার পর শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপ জিতে নেয় ৩৮-২৯ পয়েন্টে।
    ভারতের হয়ে অজয় ঠাকুর ১২ পয়েন্ট তোলেন, পরিবর্ত হিসাবে এসে নীতিন তোমারও তুলে এনেছিলেন ৬ পয়েন্ট। গ্রুপ লিগে শুরুর ওই দক্ষিণ কোরিয়া ম্যাচ বাদ দিলে, বাকি প্রতিটি খেলাতেই ছিল অনুপ কুমারের নেতৃত্বে ভারতীয় দলের দাপট। অজয় ঠাকুর আর কমবয়সী প্রদীপ নারওয়াল ‘রেইড’-এ নিয়মিত পয়েন্ট তুলেছিলেন যেমন, রক্ষণে মনজিৎ চিল্লার, সুরজিৎ, ধর্মরাজ ও সন্দীপ নারওয়ালও দুর্ভেদ্য ছিলেন প্রায়।
    পরপর তিনটি বিশ্বকাপেই ফাইনালে হারল ইরান। আগের দুবার যথাক্রমে ২০০৪ মুম্বই ও ২০০৭ পানভেল-এ। ব্যবধান ছিল প্রথমে ৫৫-২৭, পরের বার ২৯-১৯। মেরাজ শেখ যেমন কিছুতেই ভুলতে পারেন না, এশিয়ান গেমস ফাইনালে শেষবার ভারতের কাছে হারার কথা। তিনিই এসেছিলেন শেষে। পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারলে এশিয়াডে সোনা পেত ইরান। কিন্তু ভারতীয় ডিফেন্ডাররা ধরে ফেলেছিলেন তাঁকে। ফলে, ২ পযেন্টের ব্যবধানে দু’বছর আগে এশিয়াডে সোনা হাতছাড়া হয়েছিল ইরানের। ভেবেছিলেন, বদলা নেবেন ভারতের মাটিতে ভারতকে হারিয়ে নিয়ে যাবেন চ্যাম্পিয়নের শিরোপা। কিন্তু এবারও রানার্স হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে মেরাজ-কে।
    অনুপ কুমারের ভারত অবশ্য উড়ছে আকাশে। টানা তিনবার কবাডি বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এবং সাধারণ মানুষের নজর এবার কি ঘুরবে কবাডির দিকে? পুরস্কৃত করা হবে কবাডি বিশ্বকাপারদের, ভারতে?

    No comments