• Breaking News

    রুদ্ধদ্বার স্টেডিয়ামে অবরুদ্ধ রোনালদোরা

    বেলের পায়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দ্রুততম গোল রেয়ালের


    লেগিয়া ওয়ারশ-৩ ‌: রেয়াল মাদ্রিদ-৩


    (ওফোয়ে ৪০’, রাদোভিচ ৫৮’, মোলিন ৮৩’) (বেল ১’, বেঞ্জেমা ৩৫’, কোভাসিচ ৮৫’)


    baleরাইট স্পোর্টস ডেস্ক

    চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দ্রুততম গোল রেয়াল মাদ্রিদের, গ্যারেথ বেলের পা থেকে। ৩৫ মিনিটেই করিম বেঞ্জেমার সৌজন্যে রেয়াল মাদ্রিদের ২-০ এগিয়ে যাওয়া। লেগিয়া ওয়ারশর বিরুদ্ধে ম্যাচে এর পর আর থাকে কী? কোচ জিনেদিন জিদানের সেঞ্চুরি ম্যাচ নাটকে ভরপুর!

    ম্যাঞ্চেস্টার সিটি বনাম বার্সেলোনা ম্যাচের মতো এত আলোচনা হয়ত ছিল না। ছিল না পেপ গার্দিওলা বনাম লিও মেসিও। কিন্তু সিটি-বার্সা ম্যাচের মতোই রেয়াল-ওয়ারশ ম্যাচকেও আস্ত থ্রিলার বলাই যায়। ৩৯ মিনিট পর্যন্ত ০-২ পিছিয়ে ওয়ারশ। সেখান থেকে ওফোয়ের ২-১। বিরতির কিছু পরেই রাদোভিচের দ্রুত ২-২। চমকে দিয়ে আবার ৩-২ এগিয়ে যাওয়া। শেষ পর্যন্ত আবার কোভাসিচের ৩-৩।

     আর সব শেষে, ড্র করে রোনালদোদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্ব এখনও নিশ্চিত করতে না পারা। চার ম্যাচে ৮ পয়েন্ট। গ্রুপ শীর্ষে থাকা বোরুসিয়া ডর্টমুন্ড ১০ পয়েন্ট নিয়ে পরের পর্বে।

    ওয়ারশর আগের বোরুসিয়া ডর্টমুন্ড ম্যাচে স্টেডিয়ামে দর্শক হামলা হওয়ায় রেয়াল ম্যাচে ফাঁকা স্টেডিয়ামে খেলা হয়। শুরুতেই ১-০ রেয়ালের। ৫৭ সেকেন্ডে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দ্রুততম গোল করেন বেল। পরের গোলটা আবার বেঞ্জেমাকে দিয়ে করান বেল। দু’দিন আগে ক্লাবের সঙ্গে ২০২২ পর্যন্ত নতুন চুক্তি করেছেন। তার আটচল্লিশ ঘণ্টার মধ্যে তাঁর গোল ও অ্যাসিস্ট।

    ম্যাচের পর তীব্র হতাশা নিয়ে বেল বলেছেন, ‘বিরতিতে জিদান আমাদের বলেছিল, এখান থেকে তোমরা যদি ম্যাচটা বের না করতে পারো, তোমাদের দোষেই সেটা হবে। হলও তাই। নিজেরা মনঃসংযোগ ধরে রাখতে পারিনি বলেই ২-০ এগিয়ে গিয়েও ড্র করলাম ম্যাচটা।’

    ওয়ারশর বিরুদ্ধে ড্রয়ের পিছনে যে ডিফেন্সের দুর্বলতা রয়েছে, তাও স্বীকার করে নিয়েছেন বেল। তাঁর কথায়, ‘ডিফেন্সকে আরও উন্নতি করতে হবে।’

    No comments