• Breaking News

    দিল্লি প্রথম, কলকাতা দ্বিতীয় এখন!

    দিল্লি ডায়নামোস ২         কেরালা ব্লাস্টার্স ০


    (লুইস ৫৬, মার্সেলিনিও ৬০)


    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    [caption id="attachment_2195" align="alignleft" width="300"]মার্সেলিনিওর দ্বিতীয় গোলের হেড। ছবি - আইএসএল মার্সেলিনিওর দ্বিতীয় গোলের হেড। ছবি - আইএসএল[/caption]

    প্রথম ম্যাচে গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইয়িন এফসি-কে হারানো। দ্বিতীয় জয় ছিল এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে, যারা গতবারের রানার্স। এবার, দিল্লি ডায়নামোস হারাল প্রথমবারের রানার্স কেরালা ব্লাস্টার্সকে। প্রথমবারের চ্যাম্পিয়ন আতলেতিকো দে কলকাতা এবার বাড়তি ভাবনায় থাকবে দি্ল্লির বিরুদ্ধে খেলায়। প্রথম দেখায় নিজেদের মাঠে হারালেও পরের বার খেলা যে দিল্লিতেই!

    জিয়ানলুকা জামব্রোতার দল তৃতীয় ইন্ডিয়ান সুপার লিগে প্রথমবার জিতল নিজেদের মাঠে। ইতালির হয়ে বিশ্বকাপজয়ী জামব্রোতা প্রতিযোগিতার শুরু থেকেই কখনও তাড়াহুড়ো করেননি। তাঁর ইতালীয় সতীর্থ মার্কো মাতেরাজ্জির চেন্নাইয়িনকে হারিয়ে দুর্দান্ত শুরু করেও ঝাঁপাতে যাননি প্রতি ম্যাচে জেতার জন্য। হিসাব করে অঙ্ক কষে খেলিয়েছেন দলকে। চারটি ম্যাচ ড্র, মাত্র একটি হার। ইতালীয় ছোঁয়া অবশ্যই থাকছে গত দুবছরে আইএসএল-এ তেমন সাফল্য না-পাওয়া দিল্লির সঙ্গে এবার।

    প্রথমার্ধ গোলশূন্য ছিল। কেরল ব্লাস্টার্সের ইংরেজ কোচ স্টিভ কোপেল পরপর পাঁচ ম্যাচ না হেরে খেলতে এসেছিলেন দিল্লির জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে। আর একটি ম্যাচ অপরাজিত থাকতে পারলেই কেরল রেকর্ড করত। কিন্তু, কেরল রক্ষণ এবার ব্যর্থ দিল্লির সামনে। তেমনভাবে পরীক্ষা নিতেও পারেননি কেরলের ফুটবলাররা, দিল্লির রক্ষণভাগের।

    প্রথম গোলের জন্য অবশ্য দায়ী কেরলের গোলরক্ষক সন্দীপ নন্দী। ব্যাক পাস এসেছিল সন্দীপের দিকে। বল ধরতে ইতস্তত করেছিলেন ভারতীয় গোলরক্ষক। গ্যাডজে তাড়া করেছিলেন বল। সেই তাড়ার চাপে ভুল করে ফেলেন সন্দীপ। শেষে পাস বাড়িয়ে দিতে গিয়েও বল আর বিপদসীমার বাইরে পাঠাতে পারেননি। গ্যাডজে সেই বল ধরে পাস বাড়িয়ে দেন কেন লুইসের জন্য। লুইস গোল করে যান, আগুয়ান সন্দীপকে পরাস্ত করে, ৫৬ মিনিটে।

    দিল্লি জয় নিশ্চিত করে ফেলে সেই প্রথম গোলের চার মিনিট পরই। এবার ফরাসি মালুদা উঁচু করে বল ফেলেছিলেন দূরের পোস্টে। সেখানে অপেক্ষায় ছিলেন মার্সেলো পেরিরা। তাঁর হেড-করা বল সন্দীপের মাথা টপকে জায়গা নেয় গোলে। মার্সেলোর পঞ্চম গোল এবারের আইএসএল-এ, ধরে ফেললেন নর্থইস্ট ইউনাইটেডের এমিলিয়ানো আলফারোকে, সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসাবে। মালুদা আবার সবচেয়ে বেশি নবম গোলের পাস বাড়িয়ে উঠে এলেন আইএসএল ইতিহাসে সবার ওপরে। আর, দিল্লি রক্ষণকে নির্ভরতা দিয়ে আবারও ম্যাচের সেরা আনাস এদাথোদিকা।

    দিল্লির আকাশ ঢেকেছিল কুয়াশায়। কিন্তু জামব্রোতার দিল্লি ধীরে অথচ নিশ্চিতভাবেই এগিয়ে চলেছে এবারের আইএসএল-এ। কেরলকে হারিয়ে তারা টপকে গেল কলকাতাকে, পয়েন্ট তালিকায়। ৮ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে জামব্রোতার দল। সঙ্গে ১২ গোল, যা বাকি সব দলগুলির মধ্যে সর্বোচ্চও। কলকাতা ১২ পয়েন্ট নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে, একটি ম্যাচ কম খেলে। কেরলের অবস্থানে পরিবর্তন হল না। ৮ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে তারা থেকে গেল ষষ্ঠ স্থানেই, পুনে সিটি এফসি আর এফসি গোয়া-র ঠিক ওপরে।

    No comments