• Breaking News

    কোস্তার গোলে ‘ঐতিহাসিক’ প্রথম পয়েন্ট মুম্বইয়ের!

    চেন্নাইয়িন এফসি ০        মুম্বই সিটি এফসি ০


    (জেজে ৫১)             (কোস্তা ৮৮)


    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    [caption id="attachment_2180" align="alignleft" width="300"]জেজে-র গোলের পর। ছবি - আইএসএল জেজে-র গোলের পর। ছবি - আইএসএল[/caption]

    কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে ম্যাচ শেষে অখেলোয়াড়চিত আচরণের জন্য চেন্নাইয়িন এফসি-র কোচ মার্কো মাতেরাজ্জিকে এক ম্যাচের জন্য নির্বাসিত করেছিল টুর্নামেন্ট কমিটি। গ্যালারিতে বসে মাতেরাজ্জি দেখলেন, তাঁর আশঙ্কাই সত্যি হল। এর আগের দু-বছরে চারবারই মুম্বই সিটি এফসি-কে হারিয়েছিল চেন্নাই। এবার, ঘরের মাঠে, সেই রেকর্ড ধরে রাখা গেল না, মুম্বইয়ের লিও কোস্তার দুরন্ত গোলের কারণে।

    সুনীল ছেত্রী বারবারই বলেন, জেজে লালপেখলুয়ার মতো ফুটবলারদের পায়ে ভারতের ফুটবল ভবিষ্যৎ ঠিক দিশাতেই। জাতীয় দলে তাঁর অধিনায়কের কথা ঠিক প্রমাণ করতে, ইন্ডিয়ান সুপার লিগে সুনীলের দল মু্ম্বইয়ের বিরুদ্ধে নিজের দল চেন্নাইয়িনকে এগিয়ে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন জেজে। সুনীল ব্যস্ত বেঙ্গালুরু এফসি-র হয়ে এএফসি কাপের ফাইনালের জন্য। খেলতে পারছেন না আইএসএল-এ। জেজে কিন্তু স্বমহিমায় উজ্জ্বল!

    কর্নার নিয়েছিলেন মরিজিও পেলুসো, ৫১ মিনিটে। বক্সের মধ্যে জেজে একেবারে ঠিক জায়গায়, ডিফেন্ডারদের এড়িয়ে। মাথায় বল, হেড দিলেন, মুম্বইয়ের গোলরক্ষক আলবিনোর দুপায়ের ফাঁকে বল মাটিতে পড়ে গোলে। ভারতীয় স্ট্রাইকার হিসাবে ১২তম গোল জেজের, আইএসএল-এ।

    ৭০ মিনিটে ২-০ এগিয়ে যাওয়ার সোনার সুযোগ নষ্ট করেছিলেন ডুডু। সুযোগ তৈরি করে দিয়েছিলেন সেই জেজে-ই। বল নিয়ে ভেতরের দিকে ঢুকে এসেছিলেন, পেছন থেকে এগিয়ে গিয়েছিলেন ডুডু। টেলিপ্যাথিক যোগাযোগে জেজে বুঝতে পেরে বল বাড়িয়ে দিয়েছিলেন ডুডুর জন্য। কিন্তু আগুয়ান গোলরক্ষক আলবিনোর গায়ে মারেন ডুডু। অন্য যে কোনও দিন ডুডুর মতো স্ট্রাইকার বোধহয় এমন সুযোগ থেকে গোল করতে ভুল করতেন না।

    ৭৭ মিনিটে ফোরলানের ফ্রি কিক থেকে বিপজ্জনক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল চেন্নাই বক্সে। চেন্নাইয়ের গোলরক্ষক কের বেরিয়ে এসেছিলেন লাইন ছেড়ে, কিন্তু বলে হাত লাগাতে পারেননি। গোইয়ানের হেড বারে লেগে বাইরে যায়, তাঁকে নিশ্চিন্ত করে। ফোরলান থাকলে বিপক্ষ বাড়তি চিন্তায় থাকে, কোচ গিমারায়েসের এই বক্তব্যের যথার্থতা প্রমাণে উরুগুয়ের ফুটবলারের আরও একটি ফ্রি কিক চেন্নাই রক্ষণকে সচকিত করে বারের ঠিক ওপর দিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিল, ৮১ মিনিটে।

    জয়ের দিকেই এগোচ্ছিল চেন্নাই। কিন্তু, নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হওয়ার ঠিক আগে, ৮৮ মিনিটে লিও কোস্তা একটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট এনে দেন মুম্বইকে। সোনি নর্দে বল বাড়িয়েছিলেন কোস্তাকে। প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে বাঁপায়ে দূরের কোণে রেখেছিলেন বল, জোরালো শটে। চেন্নাইয়ের গোলরক্ষকের ওই শট আটকানোর কোনও উপায় ছিল না। খেলার গতির সম্পূর্ণ বিরুদ্ধে ওই গোল সমতা ফেরায়।

    চেন্নাইয়িন একধাপ উঠে চতুর্থ এখন। ৭ ম্যাচ খেলে পয়েন্ট ১০। মুম্বই সিটি ৮ ম্যাচে ১২ নিয়ে দ্বিতীয় স্থানেই। ছুঁয়ে ফেলল আতলেতিকো দে কলকাতাকে। তবে, কলকাতার চেয়ে একটি ম্যাচ বেশি খেলে। আর ভাঙল আইএসএল-এ চেন্নাইয়ের কাছে প্রতিবার হারের রীতি। প্রথম পয়েন্ট পেয়ে, চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে।

    No comments