• Breaking News

    কলকাতার মতোই তিন পয়েন্টের লক্ষ্যে নর্থইস্টও

    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    [caption id="attachment_2533" align="alignleft" width="199"]অনুশীলনে হিউম। ছবি - আইএসএল অনুশীলনে হিউম। ছবি - আইএসএল[/caption]

    তৃতীয় হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগের সেমিফাইনালে জায়গা পেতে আতলেতিকো দে কলকাতা এবং নর্থইস্ট ইউনাইটেড এফসি, দুটি দলকেই কিছুটা ঝুঁকি নিতে হবে এখন।

    দুই দলের মধ্যে পার্থক্য এখন তিন পয়েন্ট। লিগ তালিকায় কলকাতা চতুর্থ আর নর্থইস্ট সপ্তম, মানে তিনটি ধাপ পেছনে আছে জন আব্রাহামের দল! দুই কোচই তাই খুব ভাল করে জানেন যে, রবীন্দ্র সরোবর স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবারের ম্যাচে তিন পয়েন্ট পেলে অনেক কিছুই উল্টেপাল্টে যেতে পারে।

    প্রথমবারের আইএসএল-এ জয়ী কলকাতা এবার প্রথম পাঁচ ম্যাচে অপরাজিত ছিল। দুর্দান্ত এগোচ্ছিল সেমিফাইনালের লক্ষ্যে। কিন্তু, পরের চার ম্যাচে দুবার হেরেছে। আবারও হারলে প্রথম চারে জায়গা পাওয়া নিয়ে সমস্যায় পড়তে হতে পারে, বুঝতে পারছে কলকাতার টিম ম্যানেজমেন্ট।

    শেষ ম্যাচে তো প্লে অফের দিকে জায়গা প্রায় নিশ্চিত করে ফেলার সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিল কলকাতা। দিল্লি ডায়নামোস দ্বিতীয়ার্ধ খেলেছিল দশজনে। তাদের বিরুদ্ধে দুবার এগিয়েও শেষ পর্যন্ত জিতে ফিরতে পারেনি,বাড়তি একজন মাঠে থাকা সত্ত্বেও।

    ‘প্রথম ৪৫ মিনিট দুর্দান্ত খেলেছিল দল, কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে সেই তীব্রতা ধরে রাখা যায়নি’, স্বীকার করে নিয়েছিলেন কলকাতার স্পেনীয় কোচ হোসে মোলিনা, দিল্লিতে ম্যাচ ২-২ শেষ হওয়ার পর।

    কলকাতার চেয়েও তিন পয়েন্ট বেশি জরুরি এখন নর্থইস্ট ইউনাইটেড এফসি-র। না-জিতলে চলবেই না নর্থইস্টের। শুরুটা দুরন্ত করেছিল, প্রথম চার ম্যাচের মধ্যে তিনটি জিতে। কিন্তু, শেষ পাঁচটা ম্যাচের একটিতেও জেতেনি। যা আরও খারাপ, ফরোয়ার্ডরা সেভাবে গোলের মুখই দেখেননি। মাত্র তিনজন তাদের হয়ে গোল করেছেন এই ৯ ম্যাচে, যা এবারের আইএসএল-এ অন্য সব দলের তুলনায় কম।

    শেষ ম্যাচে এফসি গোয়ার কাছে হারটা মেনে নেওয়া কঠিন নেলো ভিনগাদার কাছে। কলকাতার মতোই তাঁর দলও বাড়তি একজন নিয়ে খেলেছিল, প্রাথমিক সুবিধাটা কাজে লাগাতে পারেনি। পর্তুগিজ কোচ সেই হারের সমস্ত দায় নিজের কাঁধে নিয়েছেন, কিন্তু হাল ছাড়েননি।

    ‘বড় হারই বলব, আমার নিজের কাছে। তিন পয়েন্ট পাওয়ার বিরাট সুযোগ হাতছাড়া করেছিলাম আমরা। এমন হারের পর যা হয়, আত্মবিশ্বাস ধাক্কা খায়। দলের মনোবলে চিড় ধরে। কিন্তু, এবারের লিগে এখনও কোনও দলই সেমিফাইনালে জায়গা নিশ্চিত করতে পারেনি যেমন, কারও আশাই শেষও হয়ে যায়নি। আমাদের লক্ষ্যও সবার মতোই সেমিফাইনালে জায়গা পাওয়া। কিন্তু গোয়ার কাছে হেরে আমরা দুটো ধাপ পিছিয়ে গিয়েছি,’ বলেছেন ভিনগাদা।

    নর্থইস্ট এখনও পর্যন্ত একমাত্র দল যারা টানা চারটি ম্যাচ হেরেছে। কিন্তু কলকাতার বিরুদ্ধে ম্যাচে লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা এমিলিয়ানো আলফারোর ফিরে আসা নিয়ে বিশেষ আশাবাদী হওয়ার সুযোগ তাদের সামনে। মাঝমাঠে রোমারিকও ফিরছেন। শেষ ম্যাচে নির্বাসিত ছিলেন আলফারো, আগেই চারবার হলুদ কার্ড দেখে ফেলায়। আর আহত রোমারিক মাঠে এসেছিলেন ৭৯ মিনিটে, পরিবর্ত হিসাবে। কলকাতার বিরুদ্ধে দুজনেই সম্ভবত থাকছেন প্রথম এগারয়। নর্থইস্টের আশা, গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবেন দুজনেই।

    ৯ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে নর্থইস্ট এখন তালিকায় সপ্তম। জিতলে কিন্তু প্রথম চারে চলে যাবে ভিনগাদার দল,যে-সুযোগ হারাতে রাজি নন পর্তুগিজ কোচ।

    No comments