• Breaking News

    ফুটবলারদের চাপমুক্ত থাকার পরামর্শ রঞ্জনের

    শান্তনু ব্যানার্জি


    আই লিগ এখন আর সত্যিই ভাবনায় নেই ইস্টবেঙ্গলের। থাকবেই বা কেন? দুটি ম্যাচ বাকি, ছিটকে গিয়েছে খেতাবি দৌড় থেকে। কোচ ইস্তফা দিয়েছেন। তাঁর জায়গায় যাঁকে আনা হয়েছিল কোচ হিসাবে, প্রথম দিন অনুশীলনেই চোট পেয়ে মাঠের বাইরে।

    ভাঙা মরসুমের ক্ষেত্রে যা হয়, সহকারী কোচ হিসাবে জুড়ে গিয়েছেন রঞ্জন চৌধুরী। বৃহস্পতিবার মাঠে এলেন তিনি। কথা বললেন ফুটবলারদের সঙ্গে। আলোচনা হল। আর উঠে এল একটাই কথা, আই লিগের বাকি দুটো ম্যাচে কোনওরকমে দলটাকে দেখে নিয়ে মূল লক্ষ্য ফেডারেশন কাপই।

    কেন এই ব্যর্থতা? রঞ্জনসহ ভাস্কর গাঙ্গুলি, মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য এবং তুষার রক্ষিত বৃহস্পতিবার সকালে বসেছিলেন ফুটবলারদের সঙ্গে। ভিডিও অ্যানালিসিস করে দেখানো হয়েছে, কোথায় কোথায় খামতি ছিল ফুটবলারদের।

    পরে রঞ্জন জানালেন, ‘কথা হয়েছে, ওদের দেখানোও হয়েছে ভুলগুলো। সেগুলো ঠিক করাই কাজ। দলের মনোবল তলানিতে। সেটা ফিরিয়ে আনতে হবে। ওদের সঙ্গে কথা হওয়ার পর আমাবরও আমরা চারজন একসঙ্গে বসব। আলোচনায় খুঁজে নেওয়ার চেষ্টা করব, এগিয়ে যাওয়ার পথ। আই লিগে যেভাবে চার-পাঁচটা ম্যাচে গোল হজম করতে হয়েছে, ব্যর্থতার মূল করাণ সেটাই।’

    মৃদুল ব্যানার্জি নামেই থাকছেন প্রধান কোচ হিসাবে। এ লাইসেন্স থাকায়। রঞ্জন থাকবেন সহকারী হিসাবে। যেহেতু মৃদুল বসতে পারছেন না বেঞ্চে, থাকবেন রঞ্জনই। আর, প্রশিক্ষণের দায়িত্ব এখন মিলেমিশে মনোরঞ্জন-ভাস্কর-তুষারদের সঙ্গে রঞ্জনই সামলাবেন।

    ‘বিশ্বাস করি, চাপমুক্ত থাকতে পারলে এই দলটাই ভাল খেলবে। ফুটবলারদের চাকমুক্ত রাখাটাই এখন কাজ। আর, পরামর্শ দেওয়া হবে চাপমুক্ত থাকার ব্যাপারটা নিয়েই। মনে হয়, কাজ হবে তাতেই। আলোচনার মাধ্যমে ঠিকও করে নেওয়া হবে, কোন পদ্ধতিতে খেললে ভাল হবে দলের’, জানিয়েছেন রঞ্জন।

    No comments