• Breaking News

    ‘চ্যাম্পিয়ন্স লাক’-এর খোঁজে সঞ্জয়ের মোহনবাগান

    নিয়ন্ত্রণ আর নেই মোহনবাগানের হাতে। লাজংয়ের বিরুদ্ধে এক পয়েন্ট পেলেই চ্যাম্পিয়ন মিজোরামের আইজল এফসি


    শান্তনু ব্যানার্জি


    চ্যাম্পিয়ন হবেন কিনা জানা নেই। তাকিয়ে থাকতে হবে লাজং-আইজল ম্যাচের দিকে। যদি লাজং জেতে এবং যদি মোহনবাগানও জেতে, তিন বছরে দ্বিতীয় খেতাব আসবে কলকাতায়।

    এই পরিস্থিতিতে রবিবার ঘরের মাঠ রবীন্দ্র সরোবর স্টেডিয়ামে মোহনবাগান খেলতে নামছে চেন্নাই এফসি-র বিরুদ্ধে।

    কোচ সঞ্জয় সেনের ভাবনা পরিষ্কার। ‘লক্ষ্য একটাই, জিতে আই লিগ শেষ করা। তিন পয়েন্ট চাই। তারপর, যা হবে, দেখা যাবে।’

    পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতেই ছিল মোহনবাগানের। শেষ ম্যাচে আইজল থেকে ড্র করে ফিরতে পারলেও রবিবার জিতে চ্যাম্পিয়ন হতে পারতেন সোনি নর্দেরা। কিন্তু, সেই ম্যাচে ০-১ হেরে যাওয়ায়, নিয়ন্ত্রণ আর নেই নিজেদের হাতে। লাজংয়ের বিরুদ্ধে এক পয়েন্ট পেলেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে উঠে আসবে মিজোরামের আইজল এফসি।

    এব্যাপারে বাগান কোচের বক্তব্য, ‘আমরা নিজেদের নিয়েই ভাবছি। ফোকাস নিজের দলের ওপর। নিজেদের ফুটবলারদের ওপর। লাজং-এর বিরুদ্ধে আইজল কেমন খেলল, ভেবে আমাদের লাভ নেই।’ ইউরোপীয় ক্লাব মরসুমও এসেছিল আলোচনায়। ‘গার্দিওলা, মোরিনহোরা কোচ হলেই কি দল সবসময় চ্যাম্পিয়ন হয়, হয়েছে? দল মাঠে নেমে কেমন খেলছে সেটাই আসল।’

    শনিবার সকালে বাগান সহসচিব সৃঞ্জয় বসু ক্লাব তাঁবুতে এসেছিলেন। সবুজ মেরুন ফুটবলাররা ঘন্টা দেড়েক অনুশীলন করেছিলেন নিজেদের মাঠে। আই লিগে তুলনামূলক ছোট দলের বিরুদ্ধে ম্যাচ সবসময় বিপজ্জনক, মনে করেন সঞ্জয়। ‘ডিএসকে শিবাজিয়ান্স, চেন্নাই এফসি, মিনার্ভা পাঞ্জাব, মুম্বই এফসি-র মতো দলগুলো সব সময় বড় দলগুলোর কাছে বিপজ্জনক হয়ে ওঠে। তাই বাড়তি সতর্ক থাকতেই হয়। এর আগেও মোহনবাগানকে হোম আর অ্যাওয়ে ম্যাচে লড়াই করতে হয়েছে। বাড়তি মনোযোগী হতেই হবে মাঠে।’

    ১৭ ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকায় দ্বিতীয় মোহনবাগানা। সমান ম্যাচে আইজলের পয়েন্ট ৩৬। মরসুমের মূল্যায়ণ করতে এক্ষুনি রাজি নন সঞ্জয়, ‘মূল্যায়ণের সময় এখনও আসেনি। এটা ময়নাতদন্তের সময় নয়।’

    লাজং-আইজল ম্যাচে আইজলকে হারানোর ক্ষমতা আছে লাজংয়ের, মনে করছেন কোচ। ‘আইজলের ঘরের মাঠে লাজং হেরেছে, ঠিক। কিন্তু, এবার লাজংয়ের ঘরের মাঠে খেলা। এমন ম্যাচে ভবিষ্যদ্বাণী অসম্ভব। দুটো দলই সমান। কে এগিয়ে আর কে পিছিয়ে, বলা যাবে না। তবে অ্যাওয়ে ম্যাচে আইজলের কাজটা যথেষ্ট কঠিন হবে,’ ধারণা তাঁর।

    চেন্নাইয়ের কোচ সুন্দররাজনের ‘হারানোর কিছুই নেই’। প্রশংসাও করেছেন মোহনবাগানের। ‘আইজল ম্যাচে হেরে যাওয়াটা বিরাট ধাক্কা। কিন্তু, দল হিসাবে খুবই অর্গানাইজড।’

    যেহেতু নিজেদের হাতেই সব নয়, চ্যাম্পিয়ন্স লাক-এর খোঁজে সঞ্জয়। জানালেনও, ‘ভাগ্যের শিকে ছেঁড়ার অপেক্ষায় এখন’!

    No comments