• Breaking News

    মেহতাব-অর্ণব-নারায়ণরা ফিরলেন অসংরক্ষিত কামরায়

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    [caption id="attachment_3538" align="alignleft" width="405"]বসার জায়গা পাননি। এভাবেই নিজের মালপত্রের ওপর বসে কটক থেকে কলকাতায় ফিরতে হল ইস্টবেঙ্গল ফুটবলারদের। ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার সৌজন্যে বসার জায়গা পাননি। এভাবেই নিজের মালপত্রের ওপরে দরজার পাশে বসে কটক থেকে কলকাতায় ফিরতে হল ইস্টবেঙ্গল ফুটবলারদের। ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার সৌজন্যে[/caption]

    মেহতাব হোসেন, অর্ণব মণ্ডল, নারায়ণ দাস-রা কটক থেকে ফিরলেন অসংরক্ষিত আসনে! শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামরা তো দূরের ব্যাপার, সাধারণ অসংরক্ষিত কামরায়। নারায়ণ তো বসার জায়গাও পাননি। দরজার সামনে নিজের ব্যাগের ওপরই বসে ফিরলেন। ভুবনেশ্বর-হাওড়া জনশতাব্দী এক্সপ্রেসে, যা সকালে কটক থেকে ছেড়ে হাওড়ায় পৌঁছল দুপুর বারোটা চল্লিশে।

    রবিবারের ডার্বিতে হারের ফল? আগে কি কখনও টানা দুটি ডার্বি ম্যাচে হারেনি ইস্টবেঙ্গল? বহুবার হেরেছে তো! হারলেই কি এমন অমানবিক আচরণ করা উচিত ফুটবলারদের সঙ্গে? তা হলে, এই মরসুমেই পরে যখন আইএসএল আর আই লিগের দলগুলির মধ্যে বেছে নিতে হবে ফুটবলারদের, কোন আক্কেলে আর তাঁরা আই লিগের দল বেছে নেবেন? নন-এসি ট্রেনের, জেনারেল কম্পার্টমেন্টে বসে বাড়ি ফিরতে হবে ইস্টবেঙ্গলের মতো ক্লাবের ফুটবলারদের, আজ এই ২০১৭ সালে?

    চির প্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগানের কাছে ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালে হারার পর গোটা শিবিরের ছন্নছাড়া ভাবের প্রতিফলনই এই সিদ্ধান্তে। কটক থেকে লালহলুদ দলের ফেরার কথা ছিল ভলভো বাসে। কোনও এক অজ্ঞাত কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। বেগতিক দেখে রাতেই নিজেদের মতো করে বাসে আর গাড়িতে চেপে রওনা দিয়েছিলেন দলের ১০ জন ফুটবলার। সকালেও কটকে পড়েছিলেন হাওকিপ সহ ৩ বিদেশি ফুটবলার। সঙ্গে কোচ ও কর্তাদের মিলিয়ে আরও ৫ জন। ওঁরা আবার ফিরছেন অন্য একটা গাড়িতে। নিজেরাই জুটিয়ে নিয়েছেন সেই গাড়ি। আর হাওড়া-ভুবনেশ্বর জনশতাব্দী এক্সপ্রেসে ফিরছেন টিমের ৬ জন প্লেয়ার। যাঁদের সঙ্গে ছিলেন গোলরক্ষকদের কোচ অভিজিৎ মণ্ডলও।

    সব মিলিয়ে, সর্বভারতীয় আসরে আরও একটি ট্রফিহীন মরসুম শেষের যন্ত্রণায় কাতর ইস্টবেঙ্গলে এখন সাধারণ বোধবুদ্ধিরও অভাব, ঠিক যেমন ছিল মাঠে উইলিস প্লাজাদের পারফরম্যান্সে!

    No comments