• Breaking News

    সময়ের সোনার হরিণ তবু ধরা দিল না দ্যুতির কাছে!

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    পর পর ২ বার। তীরে এসেও কূলে ভিড়ল না অ্যাথলিট দ্যুতি চাঁদের তরী। দিল্লির জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে অ্যাথলেটিক্স গ্রাঁ প্রি-তে ১০০ মিটার দৌড়ে সোনা জিতলেও, ০.০৪ সেকেন্ডের জন্য বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের সময় ছুঁতে পারলেন না ওড়িশার মেয়ে। এর আগে গত বছর ফেডারেশন কাপে ০.০১ সেকেন্ডের জন্য অলিম্পিক্সের সময় ছুঁতে পারেননি এই তরুণী। ফেডারেশন কাপের সাফল্য আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছিল দ্যুতিকে। পরে কাজাখস্তানের অলমাতিতে তিনি ১০০ মিটার দৌড়েছিলেন ১১.২৪ সেকেন্ডে। এরপর সোমবার ফের অ্যাথলেটিক্স গ্রাঁ প্রি-তে ১১.৩০ সেকেন্ডে ১০০ মিটার দৌড় শেষ করে সোনা জিতলেন দ্যুতি। এই সোনার দৌড়ই বুঝিয়ে দিচ্ছে ভবিষ্যতে তাঁর জন্য কী অপেক্ষা করে রয়েছে। ১০০ মিটারে রুপো ও ব্রোঞ্জ পেয়েছেন মার্লিন কে জোসেফ (১১.৭২ সেকেন্ড) ও হিমশ্রী  রায় (১১.৯৫ সেকেন্ড)। ‘এই প্রতিযোগিতায় টার্গেট পূরণ হয়েছে। এবার ফেডারেশন কাপে যোগ্যতা অর্জনের চেষ্টা চালাব’, জানিয়েছেন ওড়িশার সোনার মেয়ে দ্যুতি।

    অন্যদিকে আরও এক ধাপ এগোলেন জিসনা ম্যাথু। এক সপ্তাহ আগেই ৪০০ মিটারে দেশের সেরা মহিলা দৌড়বীর এম আর পুবাম্মাকে প্রায় হারিয়ে দিয়েছিলেন জিসনা। আর গ্রাঁ প্রি-র শেষ পর্বে শেষ পর্যন্ত হারিয়েই দিলেন পুবাম্মাকে। জিতে নিলেন সোনার পদক। এটাই কেরিয়ারে তাঁর সিনিয়র লেভেলে প্রথম পদক জয়। দৌড় শেষ করতে জিসনা সময় নিযেছেন ৫২.৬৫ সেকেন্ড। ৫২.৭৩ সেকেন্ডে দৌড় শেষ করে রুপো পেয়েছেন পুবাম্মা, ৫৩.৬৯ সেকেন্ডে দৌড় শেষ করে ব্রোঞ্জ দেবশ্রী মজুমদারের। জিসনার কোচ পিটি ঊষা জানিয়েছেন, পুবাম্মাকে হারানো নয়, সোনা পাওয়াই ছিল জিসনার লক্ষ্য। এবার টিন্টুসহ অন্যদের সঙ্গে ওকে ট্রেনিং দেব। আমি নিশ্চিত লন্ডন মিটে নামার যোগ্যতা আর্জন করতে পারবে জিসনা।

    No comments