• Breaking News

    যুবভারতী দেখে সন্তুষ্ট ক্রীড়ামন্ত্রী

    পাকিস্তান প্রসঙ্গে পরিষ্কার জবাব ক্রীড়ামন্ত্রীর, ‘সন্ত্রাসবাদ আর খেলা একসঙ্গে চলতে পারে না।’


    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনের ব্যবস্থাপনায় খুশি জাতীয় ক্রীড়ামন্ত্রী বিজয় গোয়েল। কলকাতায় এসে যুবভারতী ঘুরে জানিয়ে গেলেন তাঁর সন্তুষ্টির কথা। ‘কাজ ভালই এগোচ্ছে। ঠিক সময়েই শেষ হয়ে যাবে, নিশ্চিত’, বলে গেলেন ক্রীড়ামন্ত্রী।

    কলকাতায় আসার আগে দিল্লি এবং কোচি পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। ফিফা যুব বিশ্বকাপ ২০১৭ উপলক্ষ্যে প্রস্তুতি সম্পর্কে সরেজমিনে তদন্ত করতে। দুটি জায়গাতেই জাতীয় ক্রীড়ামন্ত্রী একেবারেই খুশি হতে পারেননি কাজের গতি এবং ব্যবস্থাপনা নিয়ে। আশঙ্কা ছিল, কলকাতাতেও না তেমন হয়। কিন্তু, যুব বিশ্বকাপের ফাইনাল যেখানে হবে সেখানকার প্রস্তুতি এবং কাজের গতিতে সন্তুষ্ট হওয়া স্বস্তির নিঃশ্বাস কলকাতাবাসীর কাছে।

    কথা ছিল, যুবভারতী পরিদর্শনের পর সাইতে যাবেন এবং বহু প্রাক্তন ফুটবলারের সঙ্গে দেখা করবেন তিনি। কিন্তু, অলক মুখোপাধ্যায়, অতনু ভট্টাচার্য এবং সত্যজিৎ চ্যাটার্জি ছাড়া একেবারে শেষ মুহূর্তে হাজির হয়েছিলেন ভাস্কর গাঙ্গুলি। আর কোনও প্রাক্তন ফুটবলার আসেননি। এমনকি, রাজ্যের দুই মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও লক্ষ্মীরতন শুক্লাও হাজির ছিলেন না।

    ক্রীড়ামন্ত্রীর কথায়, ‘এর মধ্যে রাজনীতির অঙ্ক দেখছি না। খেলা আর রাজনীতি দুটো সম্পূর্ণ আলাদা বিষয়। মেলাতে চাই না। আমার তো ইচ্ছে ছিল মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে একটি ফুটবল উপহার দেব। কিন্তু তিনি এখন ব্যস্ত। তাই দেখা হল না।’

    তবে, খেলা আর রাজনীতিকে না-মেলানোর কথা বললেও পাকিস্তানের সঙ্গে ক্রীড়া-সম্পর্ক রাখা নিয়ে পরিষ্কার জবাব ক্রীড়ামন্ত্রীর, ‘সন্ত্রাসবাদ আর খেলা একসঙ্গে চলতে পারে না।’

    তিনি খবর রাখছেন আইএসএল এবং আই লিগ মিলিয়ে একটি লিগ হওয়ার ব্যাপারে। ‘কথা চলছে। এখনও কিছুই নিশ্চিত হয়নি। সরকারও নজর রাখছে সব কিছুর ওপর। আইজলের ব্যাপারেও নিশ্চয়ই কথা হবে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থার সঙ্গে। দেখা যাক।’

    No comments