• Breaking News

    উধাও মর্গ্যান-জমানার গুমোট ভাব, ইস্টবেঙ্গল চাইছে নতুন শুরু

    ইস্টবেঙ্গল–চার্চিল, রবিবার বিকেল ৪-০০, সরাসরি টেন টু


    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    লিগ অতীত। এবার নকআউট প্রতিযোগিতা, যার শুরুতে গ্রুপ লিগের তিনটি ম্যাচ!

    ফেডারেশন কাপ শুরু রবিবার। কটকের বারবাটি স্টেডিয়ামে। আর প্রথম ম্যাচে আই লিগে তৃতীয় ইস্টবেঙ্গলের সামনে ষষ্ঠ চার্চিল ব্রাদার্স।

    প্রেক্ষাপটে আই লিগ আসবেই কারণ চার্চিল ব্রাদার্সের কাছে হেরেই ইস্টবেঙ্গলের খেতাব জয়ের অভিযান খাদের দিকে চলতে শুরু করেছিল। ঠিক দু-মাস আগে। ৭ মার্চ বারাসতে ঘরের মাঠে ১-২ হেরেছিল ট্রেভর জেমস মর্গ্যানের ইস্টবেঙ্গল। পরপর চার ম্যাচে হারের প্রথম। চেন্নাই সিটি, মোহনবাগান এবং ডিএসকে শিবাজিয়ান্সের কাছে হার তারপর। চাকরি যায় মর্গ্যানের। ইস্টবেঙ্গল সম্মানজনক শেষ করে শেষ দুটি ম্যাচে মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য, ভাস্কর গাঙ্গুলি, তুষার রক্ষিত ও রঞ্জন চৌধুরীর সম্মিলিত প্রশিক্ষণ ও ফুটবলারদের প্রয়াসে, শেষ দুটি ম্যাচ জিতে।

    মর্গ্যান-জমানার সেই গুমোট ভাবটা কেটে গিয়েছে। নতুন প্রতিযোগিতায় ইস্টবেঙ্গল নতুন করে নামতে চাইছে নিজেদের প্রমাণ করতে, যে কথাটা বারবার করে বোঝাচ্ছেন মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য। ‘তোমরা ইস্টবেঙ্গলের জার্সি পরে খেলছ, তোমাদের সামনে মরসুম দুর্দান্তভাবে শেষ করার আরও একটি সুযোগ এসেছে, এই সুযোগ হারিও না’, বলছেন ফুটবলারদের। উদ্দীপ্ত পারফরম্যান্স কি দেখা যাবে মাঠে?

    সহকারী কোচ রঞ্জন চৌধুরীর মতে, ‘প্রতিযোগিতায় সব দলের বিরুদ্ধে সব ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু প্রথম ম্যাচটার গুরুত্ব সবথেকে বেশি। জিতে শুরু করতে পারলে অনেকটা চাপ কমে যায়। চার্চিল ব্রাদার্সও একই রকম ভাবছে, জানি। যথেষ্ট ভাল দল, যে কোনও দলকে চাপে ফেলে দিতে পারে। আবার, সেটাই ফুটবল। মাঠে নিজেদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করবে সবাই।’

    লালহলুদ শিবিরে চোটের খবর নেই। বহু যুদ্ধের ঘোড়া মেহতাব হোসেন সুস্থ, পৌঁছে গিয়েছেন কটকে। শুরু থেকেই খেলবেন, আশা দলের। ইস্টবেঙ্গল তিন বিদেশি নিয়ে এসেছে। বুকেনিয়া, ওয়েডসন এবং প্লাজা। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে পেইনকে, যাঁকে কেন আনা হয়েছিল নিয়েই বিতর্ক ছিল।

    নতুন প্রতিযোগিতা, নতুন জমানা। ইস্টবেঙ্গলও চাইছে নতুন শুরু!

    No comments