• Breaking News

    সাক্ষীর ওজন-বিতর্ক, এশীয় কুস্তিতে নামবেন ৬০ কেজি বিভাগে

    রাইট স্পোর্টস ডেস্ক


    প্রায় এক বছর পর এই সপ্তাহে ফের কুস্তির আসরে ফিরছেন সাক্ষী মালিক। কিন্তু ফেরাটা সহজ হচ্ছে না।

    এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রায়ালে জাতীয় চ্যাম্পিয়ন মঞ্জু কুমারীকে ১০-০য় হারান সাক্ষী। তড়িঘড়ি তাঁকে জাতীয় দলে নিয়ে নেওয়া হয়। ঠিক হয় ৫৮ কেজি বিভাগে লড়বেন তিনি। বুধবার থেকেই শুরু এশীয় কুস্তি প্রতিযোগিতা। কিন্তু টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই দেখা গেল সাক্ষীর ওজন ৫৮-কেজির বেশি। এত দ্রুত ওজন কমবে না বুঝতে পেরে ভারতের কুস্তি সংস্থা রিও অলিম্পিক্সে ব্রোঞ্জ পাওয়া সাক্ষীকে ৬০ কেজি বিভাগে নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

    একই সঙ্গে ৬০ কেজি বিভাগে জাতীয় চ্যাম্পিয়ন সরিতা মোরকে ৫৮ কেজি বিভাগে নামতে বলা হয়েছে। ৫৮ কেজি বিভাগে প্রতিযোগিতা শুক্রবার। অতএব ২ কেজি ওজন কমানোর জন্য সরিতা হাতে পাচ্ছেন মাত্র ২ দিন, যা নিয়ে সরিতার অনুগামীরা চিন্তায়।

    জটিলতা অবশ্য আরও আছে। ইতিমধ্যে মঞ্জু দাবি করেছেন, ৫৮ কেজি বিভাগে তিনিই জাতীয় চ্যাম্পিয়ন। তাই ওই বিভাগে সরিতাকে নয়, তাঁকেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দিতে হবে। তবে এত দেরিতে আর কোনও রদবদল করতে নারাজ রেসলিং ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া।

    মহিলাদের প্রধান কোচ কুলদীপ মালিকের বক্তব্য, ‘এই প্রতিযোগিতার জন্য, সাক্ষীর ওজন একটু বেশি হয়ে গিয়েছিল বলে ওকে ৬০ কেজি বিভাগে লড়তে বলা হয়েছে আর সরিতাকে বলা হয়েছে ৫৮ কেজি বিভাগে লড়তে। কে কোন বিভাগে লড়বে, ঠিক করে দেওয়ার অধিকার অবশ্যই আছে ফেডারেশনের।’

    No comments