• Breaking News

    সাত বছরের খরা কাটাতে তিন গোলে শুরু মোহনবাগানের

    শান্তনু ব্যানার্জি


    [caption id="attachment_3952" align="alignnone" width="960"] ছবি মোহনবাগান ফ্যানাটিক-এর সৌজন্যে[/caption]

    কলকাতা প্রিমিয়ার লিগে সাত বছরের খরা মেটানোর দৌড়ে সাদার্ন সমিতিকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে মোহনবাগান নিজেদের লিগ অভিযান শুরু করে দিল। দুর্বল সাদার্ন সমিতিকে প্রথম ম্যাচে পেয়েও গোল পাওয়ার জন্যে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৫১ মিনিট পর্যন্ত। প্রথমার্ধে মাঝমাঠ থেকে বলের সাপ্লাই না পাওয়া পয়লা কারণ হিসেবে উঠে আসলে দ্বিতীয় কারণ ক্রোমা-কামো-লিংডোর সুযোগ নষ্ট। বিরতির পরে ৫১ মিনিটে কামোর কাছে গোলের সুযোগ এসেছিল। কিন্তু বল সাদার্নের জালে জড়াতে আবার ব্যর্থ। অবশেষে ৫২ মিনিটে বাগানের 'বালোতোলি' ক্রোমাই গোলের দরজা খুলে দেন। তারপর মাঠ জুড়ে শুধুই সবুজ মেরুন ম্যাজিক। ৭০ মিনিটে ম্যাচের সেরা ক্রোমা ফের লম্বা দৌড়ের পর জোরালো শট রেখেছিলেন তিনকাঠিতে। সাদার্ন সমিতির গোলকিপার সেই শট দক্ষতার সঙ্গে আটকে দিলেও শেষ রক্ষা করে উঠতে পারেননি। ফিরতি বল লক্ষ্য করে দ্রুত এসে আজহারউদ্দিন মল্লিকের শটে ২-০। তার ১৪ মিনিট পরেই জটলা থেকে বদলি ফুটবলার শিলটন ডিসিলভার গোলে ৩-০, প্রথম ম্যাচে নিজেদের জয় সুনিশ্চিত।

    বাগান কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী ম্যাচের ৮০ মিনিটে ক্রোমাকে তুলে নেন। শেষ মুহূর্তে সাদার্ন সমিতি ব্যবধান কমানোর সুযোগ পেয়ে গিয়েছিল। বাগানের কিংসলে সাদার্নের আবু বকরকে বক্সের ভিতরে ফাউল করেছিলেন। রেফারি পেনাল্টি দিলেও সাদার্ন অধিনায়ক দীপঙ্কর রায়ের পেনাল্টি গোলপোস্টের ওপর দিয়ে বেরিয়ে যায়। আর ৮৯ মিনিটে বাগানের চেস্টারপল লিংডোর জোড়ালো শট নরহরি শ্রেষ্ঠার পায়ে লেগে গোল লাইনের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা সাদার্নের ফুটবলারের গায়ে লেগে ছিটকে বেরিয়ে আসে।



    ম্যাচের শুরু থেকেই গ্যালারিতে ছিলেন খোসে রামিরেজ বারেতো। সবুজ তোতা জানিয়েছেন, মোহনবগানের খেলা দেখে তিনি খুশি। ক্রোমার সঙ্গে টিমের কম্বিনেশন ভালই গড়ে উঠেছে, মনে করছেন। ম্যাচ শেষে ক্রোমা বলেছেন, ‘প্রথম ম্যাচ জিতে খুব খুশি। প্রথমার্ধে মাঝমাঠ থেকে বলের সাপ্লাই সেভাবে পাওয়া যাচ্ছিল না। বিরতির পরে পরিবর্তরা এসে সেই কাজটা ভালই করেছিল। ফলে ম্যাচটা বেরিয়ে এল।’

    রবিবার ইস্টবেঙ্গল তাঁবুতে গিয়েছিলেন বারেতো। সোমবার পুরো দিনই প্রায় বাগান-তাঁবুতে। ম্যাচ শুরুর আগে মোহনবাগান ফুটবলারদের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। ক্রোমা এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, ‘ম্যাচের আগে বারেতোর সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। বলছিল, সবুজ মেরুন জার্সি গায়ে চাপালে চাপ থাকবেই। আর এই চাপের মধ্যে থেকেই ম্যাচ বের করতে হবে ফুটবলারদের। মানসিকভাবে নিজেকে প্রস্তুত রাখতে হবে।’

    No comments