• Breaking News

    প্লাজার দেশওয়ালি মিচেলের জোড়া গোলে ইস্টবেঙ্গলের জয়

    শান্তনু ব্যানার্জি


    উইলিস প্লাজার নামের পাশে দ্বিতীয় ম্যাচেও গোল নেই। কিন্তু প্লাজার দেশওয়ালি ভাই কার্লাইল মিচেল জোড়া গোল দিয়ে দুয়ে দুই করলেন ইস্টবেঙ্গলের পক্ষে। ৭৬ এবং ৯২ মিনিটে মিচেলের জোড়া গোলে দু-ম্যাচে ৬ পয়েন্ট এখন ইস্টবেঙ্গলের।

    কলকাতা ফুটবল লিগে (সিএফএল) বুধবার খেলা ছিল কাস্টমসের বিরুদ্ধে। প্রথমার্ধে গোলশূন্য হওয়ায় ক্রমশ দমবন্ধ পরিস্থিতি ঘরের মাঠে। স্বস্তির নিশ্বাস ফেলার সুযোগ এনে দিলেন মিচেল।

    শুধু তাই-ই নয়, অন্তত দুবার পিছিয়েও পড়তেই পারত ইস্টবেঙ্গল। ৪১ মিনিটে কাস্টমসের স্যামুয়েল কেনের হেড অল্পের জন্য বাইরে যায়। ৫১ মিনিটে বক্সের ভিতরে কাস্টমসের উজ্জ্বল হাওলাদার ইস্টবেঙ্গলের গোলকিপার লুইস ব্যারেটোকে একের বিরুদ্ধে এক পজিশনে পেয়েও গোল করতে পারেননি।

    কাস্টমস অবশ্য দাবি করেছিল পেনাল্টিরও যখন গোলকিপার ব্যারেটো বক্সের বাইরে বেরিয়ে এসে বল ধরে ফেলেছিলেন। কিন্তু রেফারি উত্তম সরকার পেনাল্টির নির্দেশ না দিয়ে খেলা চালিয়ে যান। রেফারির সিদ্ধান্তে কাস্টমসের ফুটবলাররা মাঠেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। কাস্টমস-কোচ রাজীব দে খেলাশেষে জানিয়েছেন, ‘ন্যায্য পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত হতে হল। আমাদের আর কিছু বলার নেই। রেফারির সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়াটা কঠিন।’

    প্রথম ম্যাচে ভিপি সুহেরের হ্যাটট্রিকে ইস্টবেঙ্গল জয়ের মুখ দেখেছিল। কিন্তু কাস্টমসের বিরুদ্ধে সুহের-ম্যাজিক উধাও। ৬৪ মিনিটে আমনার ফ্রিকিক থেকে কাস্টমসের বক্সের ভিতরে বল পেয়েও সুহের গোল করতে পারেননি। একই অবস্থা প্লাজারও। ম্যাচ শেষে প্লাজাকে আড়াল করার চেষ্টায় কোনও খামতি রাখেননি ইস্টবেঙ্গল কোচ খালিদ জামিল। দু-ম্যাচে ৯০ এবং ৮৫ মিনিট তাঁকে মাঠে রাখা প্রসঙ্গে ইস্টবেঙ্গল কোচ খালিদ জানিয়েছেন, ‘দু-দিন অন্তর ম্যাচ খেলতে হচ্ছে। জাতীয় ক্যাম্পে ফুটবলাররা চলে গিয়েছে। প্লাজাকে বিশ্রাম দেওয়ার প্রয়োজনও আছে। কেন না, বিশ্বাস করি প্লাজা ভালমানের ফুটবলার।’

    কাস্টমসের বিরুদ্ধে জোড়া গোলের মালিক মিচেল সম্পর্কে লাল হলুদ কোচ জানিয়েছেন, ‘মিচেল আচ্ছা প্লেয়ার হ্যায়।’ এ-ও বলেছেন, টাইমিং ভাল থাকায় সেটপিস থেকে গোল করতে পেরেছেন মিচেল। তাঁর মতে, ‘দেশে থাকার সময়ে সেটপিস নিয়ে প্রচুর পরিশ্রম করেছি। ফল পেলাম।’ নিজের চোট প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘চোট গুরুতর মোটেও নয়, সুস্থই।’

    সমর্থকরা অবশ্য খুব একটা খুশি নয় দলের খেলায়। এদিন মাঠে প্রথম ম্যাচের তুলনায় অনেক কম দর্শকও। ম্যাচ শেষে কোচ খালিদ জানিয়েছেন, ‘তিন পয়েন্ট এসেছে, ওটাই আসল। ছেলেদের খেলায় খুশি। প্রেসার আছে, সন্দেহ নেই। তবে এনজয় করছি।’

    No comments