• Breaking News

    প্রিভিউ এটিকে-পুনে: ঘরের মাঠের সুবিধা নিতে চায় এটিকে

    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ


    [caption id="attachment_4062" align="alignleft" width="1200"] এটিকে কোচ টেডি শেরিংহ্যাম। ছবি - আইএসএল[/caption]

    কলকাতা, ২৫ নভেম্বর – ঘরের মাঠের বিরাট জনসমর্থন কাজে লাগিয়ে বিশাল বিবেকান্নদ যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে এবারের চতুর্থ হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগে রবিবার প্রথম জয় তুলে নিতে আগ্রহী এটিকে-র কোচ টেডি শেরিংহ্যাম।

    ‘সমর্থকদের মন জিততে চাই। শুনছি, হাজারে হাজারে দর্শক আসবেন খেলা দেখতে। ওঁদের জন্যও দুর্দান্ত খেলতে চাই যাতে ওঁরা মনে রাখতে পারেন আমাদের খেলা। মাঠভর্তি সমর্থকের সামনে খেলার আনন্দই আলাদা,’ বলেছেন শেরিংহ্যাম, ম্যাচের একদিন আগে সাংবাদিক সম্মেলনে।

    গতবারের চ্যাম্পিয়ন এটিকে এবার আইএসএল অভিযান শুরু করেছিল কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে গোলশূন্য ড্র রেখে। ঘরের মাঠে প্রথম খেলায় জিতলে প্লে অফে পৌঁছনোর জন্য প্রয়োজনীয় গতি পেয়ে যাবে এটিকে।

    ‘ঘরের মাঠে খেলে জিততে পারলে বাইরের ম্যাচগুলো সহজ হয়ে যাবে আমাদের পক্ষে,’ মত শেরিংহ্যামের।

    যদিও কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে ম্যাচে গোল পায়নি এটিকে, ইতিবাচক বেশ কয়েকটি ব্যাপার ছিল শেরিংহ্যামের দলের খেলায়। মাঝমাঠ থেকে খেলা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে ছিলেন কোনর উইলিয়ামস এবং ইউজেনিসন লিংদো। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য সামনে রেখেই পাস দিয়েছিলেন এটিকের ফুটবলাররা। তিন পয়েন্ট নিয়েই ফিরতে পারতেন যদি প্রাপ্স সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারতেন, প্রথম রাতের খেলায়, কোচিতে।

    এটিকে-র তারকা রবি কিন অবশ্য এই ম্যাচেও খেলতে পারবেন না। চোট এখনও পুরোপুরি সারেনি। কিন্তু সেরিংহ্যামের বিশ্বাস, কিন না থাকলেও দলে গোল করার লোকের অভাব নেই। ‘গোল করার মতো ফুটবলারের অভাব আছে, মানতে রাজি নই। (নিয়াজি) কুকি খুবই ভাল খেলেছিল প্রথম ম্যাচে। রবিন সিংও অনুশীলনে রোজই মুগ্ধ করছে, মাঠে নামার জন্য মুখিয়ে আছে,’ বলেছেন শেরিংহ্যাম।

    ঘরের মাঠে প্রথম ম্যাচে দিল্লি ডায়নামোসের বিরুদ্ধে হতাশাজনক ২-৩ হারের পর এফসি পুনে সিটি জানে, এটিকের মতো সংঘবদ্ধ দলের বিরুদ্ধে তাদের ঘরের মাঠ থেকে ইতিবাচক ফল নিয়ে ফিরতে হলে ফুটবলারদের প্রত্যেককেই থাকতে হবে নিজেদের দক্ষতার শীর্ষে।

    ‘মাঠে খেলতে নামি তো পয়েন্ট পেতেই। জানি, ব্যাপারটা সহজ হবে না। এটিকে খুবই শক্তিশালী দল। মাঠে ওদের সমর্থকরাও থাকবেন বিরাট সংখ্যায়। কিন্তু, তিন পয়েন্ট পাওয়ার লক্ষ্যে আমাদেরও চেষ্টার ত্রুটি থাকবে না। মাঠে সেটাই করে দেখাতে হবে। আশা তো করছি, বিপক্ষের কাজটাকে কঠিন করে তুলতে পারব আমরা,’ বলেছেন পুনের কোচ রানকো পোপোভিচ।

    সার্বীয় কোচ পোপোভিচ যদিও জানেন, এটিকে-র বিরুদ্ধে কাজটা মোটেই সহজ হবে না, কিন্তু তাঁকে আশাবাদী করে তুলতে পারে কলকাতার দলের বিরুদ্ধে পুনের অতীত পারফরম্যান্স। গত তিন বছরে ছ’বার মুখোমুখি হয়েছে দুটি দল। মাত্র একবারই পুনেকে হারাতে পেরেছিল এটিকে!

    No comments