• Breaking News

    ঘরের মাঠে পুনের কাছে পর্যুদস্ত চ্যাম্পিয়নরা

     

    এটিকে - ১             পুনে – ৪


    (বিপিন ৫০)    (মার্সেলিনিও ১৪, ৬০, রোহিত ৫১, আলফারো ৮০)


    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ

    কলকাতা, ২৬ নভেম্বর – বিবেকানন্দ যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে ফেরাটা একেবারেই সুখের হল না এটিকের কাছে। ফিফা অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের কারণে ২০১৬য় যুবভারতীতে খেলতে পারেনি কোনও দলই। এক বছর পর ফিরে চতুর্থ হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগে রবিবার ঘরের মাঠে প্রথম ম্যাচে পর্যুদস্ত হয়ে হারতে হল গতবারের চ্যাম্পিয়ন এটিকে-কে। এফসি পুনে সিটি দুর্দান্ত জয় ও তিন পয়েন্ট তুলে নিয়ে গেল অ্যাওয়ে ম্যাচ থেকে, নিজেদের ঘরের মাঠে প্রথম ম্যাচে দিল্লি ডায়নামোসের বিরুদ্ধে হতাশাজনক ২-৩ হারের পর।

    টেডি শেরিংহ্যামের দেশের অনূর্ধ্ব ১৭ ফুটবলাররা এই মাঠ থেকেই জিতে নিয়ে গিয়েছিলেন বিশ্বকাপ। কিন্তু সেই মাঠেই ২৪ বছরের ইংরেজ টম থর্প পুনের হাতে তুলে দিয়েছিলেন অস্ত্র। প্রথম গোলের জন্য দায়িত্ব অস্বীকার করতে পারবেন না থর্প। রাইট ব্যাক যে জায়গায় দাঁড়ান সেখানে দাঁড়িয়ে থর্প বুঝতেই পারেননি বলের গতিপথ। বল তাঁর পায়ের তলা দিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিল। পেছন থেকে বেরিয়ে এসে আলফারো বল নিয়ে এগিয়ে বক্সে পাঠিয়ে দেন যেখানে ফাঁকায় বল গোল ঠেলে দিয়েছিলেন গতবারের সর্বোচ্চ গোলদাতা মার্সেলিনিও, বিনা বাধায়।

    পুনে সিটি এফসি-র বাকি তিনটি গোলেও থেকে গেল ম্যাচের নায়ক মার্সেলো লেইতে পেরিরা বা মার্সেলিনিওর নাম। দ্বিতীয় গোল পেয়েছিল পুনে ৫১ মিনিটে। মার্সেলিনিওর কর্নারে বক্সের মধ্যে থেকে ফাঁকায় হেড করে যান রোহিত কুমার। এটিকে রক্ষণের কেউ খেয়ালই করেননি পেছন থেকে তাঁর দৌড়। আসলে এটিকে তখনও নিজেদের সমতা ফেরানোর ঘোর কাটিয়ে বেরতে পারেনি। তার ঠিক আগের মিনিটেই ১-১ করেছিলেন এবার আইএসএল-এ প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা বিপিন সিং। বক্সের ঠিক বাইরে ফ্রি কিক পেয়েছিল এটিকে। ২২ গজ দূর থেকে বাঁপায়ে দুর্দান্ত শট নিয়েছিলেন বিপিন যা বারে লেগে গোলে গিয়েছিল। তার ঠিক পরের মিনিটেই পিছিয়ে পড়ত হবে ঘরের মাঠে, বোধহয় ভাবেননি এটিকের ফুটবলাররা।

    মার্সেলিনিও নিজের দ্বিতীয় গোল পেয়েছিলেন ৬০ মিনিটে। ডানদিক থেকে দিয়েগো কার্লোসের ক্রস প্রবীর দাস হেড করে বের করে দিয়েছিলেন। কিন্তু রাফায়েল লোপেজ পেয়ে যান মাথায়, নামিয়ে দিয়েছিলেন মার্সেলিনিওর জন্য। ব্রাজিলীয় ফুটবলার সময় নষ্ট করেননি। শট নিয়েছিলেন ডান পায়ে যা এটিকের অধিনায়ক ফিগেরাস মোন্তেলের পা ছুঁয়ে দিক পরিবর্তন করে জালে জড়ায়।

    চতুর্থ গোল ৮০ মিনিটে, এবারও মার্সেলিনিওর অ্যাসিস্ট। এটিকের থ্রো-ইন মাজপথে ছিনিয়ে নিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলেন ব্রাজিলীয়। এটিকে রক্ষণ পুরোপুরি অপ্রস্তুত। উরুগুয়ের আগুয়ান ফরোয়ার্ড এমিলিয়ানো আলফারোকে সাজিয়ে দিয়েছিলেন মার্সেলিনিও। আলফারো ভুল করেননি দেবজিতের ডান দিক দিয়ে বল জালে পাঠাতে। প্রথম গোলের ঠিক উল্টো, যখন আলফারোর পাস থেকে গোল করেছিলেন মার্সেলিনিও।

    কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে ম্যাচে গোল পায়নি এটিকে, এবার ঘরের মাঠে প্রথম ম্যাচেই চারবার জালে বল ঢুকল গতবারের চ্যাম্পিয়নদের। রক্ষণের ভুলের খেসারতই দিতে হল যুবভারতীতে। কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে যেমন হতাশ করেছিলেন স্ট্রাইকাররা, এবার পালা ডিফেন্ডারদের। রবি কিন কলকাতায় পৌঁছেই গ্যালারি থেকে দেখলেন শোচনীয় হার। পুনের সার্বীয় কোচ রানকো পোপোভিচ ধরে রাখলেন এটিকে-র বিরুদ্ধে পুনের ভাল খেলার রেকর্ড। আগের ছ’বারে তিনবার জিতেছিল, সপ্তমবারে পেল সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়। তা-ও চ্যাম্পিয়নদের ঘরের মাঠে, ৩২,৮১৬ সমর্থকের সামনে। তৃপ্ত হয়েই ফিরছেন পোপোভিচ, নিশ্চিত!

    No comments