• Breaking News

    আইএসএল অনুরাগীরাই টেনে এনেছে ভারতে: শেরিংহ্যাম

    এটিকে-র প্রধান কোচ এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-এর প্রাক্তন কিংবদন্তি স্বীকার করলেন যে, কেরালা ব্লাস্টার্স এফসি-ই তাঁর দলের সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ



    আইএসএল প্রেস রিলিজ


    এটিকে-র প্রধান কোচ টেডি শে্রিংহ্যাম জানালেন যে, হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগের ম্যাচগুলিতে মাঠে উপস্থিত ফুটবল ভক্তদের সংখ্যাই তাঁকে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করেছিল ভারতে আসতে।


    ‘প্রথমে খানিকটা সন্দেহ ছিলই। নিজের কাছেই জানতে চেয়েছিলাম, এত দূরের ভারতে গিয়ে কোনও একটা দলের ম্যানেজারি করার কি সত্যিই আদৌ কোনও দরকার আছে? তারপর অবশ্য বেশ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলি, যাদের মধ্যে ছিল জামশেদপুর এফসি-র এবারের কোচ স্টিভ কোপেলও। ওরা প্রত্যেকেই বেশ ভাল ভাল কথা বলেছিল ভারত এবং হিরো আইএসএল সম্পর্কে। পরে যখন জানতে পারি যে, ৬০ হাজার লোকের সামনে খেলতে হবে, মনে হয়েছিল এমন পরিস্থিতিতেই তো ম্যানেজার হিসাবে নিজেকে যাচাই করতে চাই,’ বললেন শেরিংহ্যাম। কলকাতায় হিরো আইএসএল-এ সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথায়।


    গতবারের চ্যাম্পিয়নরা এবার প্রথম ম্যাচ খেলবে কোচি-তে, কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে। শেরিংহ্যাম জানিয়েছেন, গ্যালারির হলুদ ঝড়ের বিরুদ্ধে চরম প্রতিকূল পরিস্থিতিতে খেলার জন্য মুখিয়ে রয়েছে তাঁর দল।


    ‘অবশ্যই বিরাট চ্যালেঞ্জ। কিন্তু, যদি বেছে নিতে বলা হয় যে তিন হাজার দর্শকের সামনে খেলবে না ষাট হাজার, আমি অবশ্যই ৬০ হাজারের গ্যালারিকে বেছে নেব। সল্ট লেক স্টেডিয়ামে, আমাদের হোম ম্যাচগুলোতেও সমান সংখ্যায় ভক্তদের দেখতে চাই,’ জানালেন শেরিংহ্যাম।


    প্রতিযোগিতার শুরুতেই গতবারের ফাইনালের পুনরাবৃত্তি! এটিকে-কে খেলতে হবে অ্যাওয়ে ম্যাচে কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে, যেখানে এটিকে টাইব্রেকারে জিতেছিল ৪-৩। তুলনায় আরও একটু সহজ ম্যাচ হলেই ভাল হত কিনা প্রশ্নে শেরিংহ্যাম বরঞ্চ শুরুতেই শক্ত ম্যাচ হওয়ার ইতিবাচক দিকগুলোই তুলে ধরতে চেয়েছেন।


    ‘এমন পরিবেশে শুরু করাই তো ভাল যেখানে মস্তিষ্ক কাজা লাগাতে হবে সবচেয়ে বেশি। খুব কঠিন ম্যাচ। কিন্তু ৬০ হাজারের গ্যালারি যখন বিপক্ষকে সমর্থন জানাবে সরবে, ভাল খেলতে পারাটাই তো আসল,’ বললেন ৫১ বছর বয়সি কোচ।


    এটিকে-ব্লাস্টার্স দ্বৈরথ গত তিন বছরে অন্যমাত্রায় পৌঁছেছে যেখানে পাঁচটি ম্যাচে এটিকে-কে হারাতে পারেনি দক্ষিণী ব্লাস্টার্স। কিন্তু শেরিংহ্যাম স্বীকার করে নিয়েছেন যে, তাঁদের উচ্চাকাঙ্ক্ষার পথে সবচেয়ে বড় কাঁটা ব্লাস্টার্সই।


    ‘অনেকেই জানতে চেয়েছিলেন অন্যান্য দলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী কারা? আমার মনে হচ্ছে সেই দল যাদের জন্য গ্যালারি থেকে দ্বাদশ ব্যক্তির কাজ করে সমর্থকরা, অর্থাৎ কেরালা ব্লাস্টার্স। আবেগপ্রবণ সমর্থকদের উপস্থিতি দুর্দান্ত ব্যাপার। মাঠে খেলার সময় আমরা সবাই এমন কিছু মুহূর্তের সাক্ষী যেখানে দর্শক ভীষণভাবে বিপক্ষে থেকে নিজেদের দলকে উদ্দীপ্ত করেছে আরও ভাল খেলতে,’ গ্যালারির সমর্থন আদায় করতে কেন নিজেদের ভাল খেলা বেশি জরুরি প্রসঙ্গে বলছিলেন শেরিংহ্যাম।


    প্রধান কোচ আরও জানিয়েছেন যে, এটিকে প্রথম ম্যাচে তাঁদের তারকা রবি কিনকে পাচ্ছে না, অ্যাকিলিস সংক্রান্ত সমস্যা্য়।


    ‘মিথ্যে বলব না। বিরাট আঘাত আমাদের কাছে। তবে, চোটটা তেমন বিরাট কিছু নয়। মনে হচ্ছে সপ্তাহদুয়েকের মধ্যেই ফিরে আসবে,’ জানিয়েছেন তিনি।


    ১৭ নভেম্বর এবারের হিরো আইএসএল শুরু হচ্ছে কোচিতে কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে এটিকে-র ম্যাচ দিয়ে। শেরিংহ্যাম জানেন তাঁর দলকে বিশেষভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে শুক্রবার সন্ধেবেলায় অবিস্মরণীয় পরিবেশে সেরা খেলাটা তুলে ধরতে।

    No comments