• Breaking News

    সমালোচনা সত্ত্বেও চেন্নাইয়িনের আসল ভরসা জেজে

    আইএসএল মিডিয়া রিলিজ


    বেঙ্গালুরু, ১৫ মার্চ – দুর্ধর্ষ সুনীল ছেত্রীকে বাদ দিলে আর যে ভারতীয় ফুটবলারের জন্য পয়যা উসুল হয়েছে হিরো ইন্ডিয়ান সুপার লিগে, তিনি নিঃসন্দেহে জেজে লালপেখলুয়া। চেন্নাইয়িনে এফসির ভারতীয় স্ট্রাইকার এবারের মরসুমে ৯ গোল করেও রেহাই পাননি সমালোচকদের হাত থেকে।

    আগামী শনিবার বেঙ্গালুরুর শ্রী কান্তিরভা স্টেডিয়ামে আলবের্ত রোকার বেঙ্গালুরু এ্রফসির বিরুদ্ধে ফাইনালে সুপার মাচানদের আক্রমণে নেতৃত্ব দেবেন জেজে। এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে সেমিফাইনালের দ্বিতীয় পর্বে জোড়া গোলের পর তিনি আবারও সমর্থকদের নয়নমণি। কিন্তু মিজো স্ট্রাইকার সব সময় এই ভালবাসা পাননি।

    চার বছরে এটাই তাঁর হিরো আইএসএল-এ সেরা মরসুম। কিন্তু অন্তত বারদুয়েক আঙুল তোলা হয়েছিল তাঁর ব্যর্থতার দিকে, এই মরসুমেই।

    প্রথম তিনটি ম্যাচে একটিও গোল করেননি। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন তোলা হয়েছিল। তেমন পরিস্থিতিতে জেজে বরাবর যা করে এসেছেন, এটিকের বিরুদ্ধে জোড়া গোল করে জবাব দিয়েছিলেন, যে ম্যাচে ৩-২ জয়ের গোল এসেছিল ৯০ মিনিটে।

    সমালোচকদের থামিয়ে দেওয়ার পরই জেজে ছিলেন এবারের মরসুমে তাঁর সেরা ছন্দে। পরের ৮ ম্যাচে তাঁর ৫ গোল। কিন্তু তারপরই আবার খরা। টানা ৬ ম্যাচে একটিও গোল পাননি। মিজো স্ট্রাইকারের গোলখরা আবারও সংবাদমাধ্যমের আলোচনায়।

    কোচ জন গ্রেগরি অবশ্য পাশেই ছিলেন। আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছিলেন কোচ জেজের, সবাইকে সঙ্গে নিয়েই। অনবদ্য ছন্দে এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে জোড়া গোল করে কোচের আস্থার মর্যাদা দিয়েছিলেন জেজে।

    ‘আমি তো জেজেকে বলেইছিলাম যে দুটো গোল পাবে,’ বলেছিলেন গ্রেগরি, গোয়ার বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে গোয়াকে ৩-০ হারিয়ে (মোট ৪-১) ফাইনালে ওঠার পর।

    ‘গোয়ার ওই অস্বাভাবিক আর্দ্রতায় মাঠে দৌড়তে দৌড়তে পড়ে যাচ্ছিল। ঘরের মাঠে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে পায়ে টান ধরেছিল অতিরিক্ত উৎসাহ এবং প্রচেষ্টায়। আমি জানি, ওর দক্ষতায় আস্থা রাখলে অবশ্যই ফিরিয়ে দেবে জেজে।’

    জেজে অবশ্য বরাবরই সমালোচিত হয়েছেন, শুরুর দিকে পৈলান অ্যারোজ এবং পরে ডেম্পো স্পোর্টসের হয়ে খেলার সময় থেকেই। যখনই গোল পাননি, প্রচারমাধ্যমের অযাচিত আলো এসে পড়েছে তাঁর মুখে। তবুও, প্রায় কোনও সময়ই নিরাশ করেননি জেজে।

    ‘আমাদের কোচ আস্থা রেখেছেন আমার দক্ষতায়। সেই আস্থার মর্যাদা দিতে চেয়েছিলাম। এই মরসুম সত্যিই বড় লম্বা। কিন্তু দল হিসাবে আমরা আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্যে পৌঁছেছি। শনিবারের ফাইনাল সব অর্থেই বড় ম্যাচ। আমরা প্রস্তুত,’ বলেছেন জেজে।

    No comments