• Breaking News

    শার্দূল ৪/২৭, জিতে কার্যত ফাইনালে ভারত

    শুভব্রত মুখার্জি


    নিদাহাস ট্রফির বৃষ্টিবিঘ্নিত চতুর্থ ম্যাচে রোহিত শর্মার ভারত মুখোমুখি হয়েছিল  চন্ডিমালবিহীন লঙ্কাবাহিনীর। শার্দূল ঠাকুরের বোলিং ও মণীশ পান্ডের ব্যাটিং ভারতকে ফাইনালের কাছাকাছি নিয়ে গেল আয়োজকদের ৬ উইকেটে হারিয়ে।

    টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। বৃষ্টির জন্য ২০-র পরিবর্তে ১৯ ওভারের ম্যাচ করা হয়। নির্ধারিত ১৯ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৫২ রান তুলেছিল শ্রীলঙ্কা। প্রথমেই গুণতিলক (১৭ রান) এবং কুশল পেরেরার (৩ রান) উইকেট হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে যায় লঙ্কাবাহিনী। এরপর উপুল থরঙ্গার (২২ রান) সঙ্গে জুটি বেঁধে তৃতীয় উইকেটে ৬২ রান যোগ করেন কুশল মেন্ডিস। শার্দুল ঠাকুরের বলে ১৫ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান থিসারা পেরেরা। চাহলের বলে ৫৫ রান করে আউট হন শ্রীলঙ্কার ইনিংসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক কুশল মেন্ডিস। জীবন মেন্ডিস ১ রান ও  দাসুন শানাকা করেন ১৯ রান। ভারতের হয়ে শার্দুল ঠাকুর নেন ৪ উইকেট, মাত্র ২৭ রান দিয়ে। ২টি উইকেট ওয়াশিংটন সুন্দরের, চাহল ও উনাড়কাটের একটি করে।
    আগের ম্যাচেই বাংলাদেশের কাছে মুখ থুবড়ে পড়েছিল থিসারা পেরেরার দলের বোলাররা। ২১৪ রান তাড়া করতে নেমে মুশফিকুর রহিমের অনবদ্য ৭২ রানের অপরাজিত ইনিংসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুরন্ত জয় ছিনিয়ে নিয়ে নিদাহাস ট্রফির লড়াই জমিয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশ। ফলে বেড়েছিল এই ম্যাচের গুরুত্ব। জেতার জন্য ১৫৩ তাড়া করতে নেমে রোহিত-ধাওয়ান জুটির শুরুটা ভালো হয়নি। অখিল ধনঞ্জয়ের বলে বক্তিগত মাত্র ১১ রানে রোহিত এবং ৮ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ধাওয়ান। নুয়ান প্রদীপের বলে ২৭ রান করে আউট হন রায়না। জীবন মেন্ডিসের বলে ১৮ রান করে হিট উইকেট হন লোকেশ রাহুল। দীনেশ কার্তিকের অপরাজিত ৩৯ এবং মনীশ পান্ডের অপরাজিত ৪২ রানের ইনিংসের সুবাদে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত ১৭.৩ ওভারেই, ৬ উইকেট হাতে নিয়ে। শ্রীলঙ্কার হয়ে প্রদীপ ১টি, ধনঞ্জয় ২টি, জীবন মেন্ডিস ১টি উইকেট নেন। এই জয়ের ফলে, প্রতিযোগিতায় তিনটির মধ্যে দুটি ম্যাচ জিতে কার্যত ফাইনালেই পৌঁছে গেল ভারত।

    No comments