• Breaking News

    রোহিতদের হারিয়ে বিরাটরা পাঁচে

    শুভব্রত মুখার্জি


    ভারতীয় দলের দুই সতীর্থের মুখোমুখি লড়াই ছিল চিন্নাস্বামীতে। রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্স এবং বিরাট কোহলির বেঙ্গালুরু। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে আরসিবির শুরুটা ভালই করেছিলেন মনন  এবং কুইন্টন ডি কক। পাওয়ার প্লে-তে ৫ ওভারে জুটিতে ৪৬ রান তোলেন দুজনে। মিচেল ম্যাকক্লেনাঘানের বলে রোহিতকে ক্যাচ দিয়ে ১৩ বলে ৭ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ডি কক। ‘ওয়ান্ডার কিড’ মায়াঙ্ক মার্কান্ডের বলে এলবিডব্লিউ আউট হন মনন, ৩১ বলে ৪৫ রান করে। ৬১ রানে ২ উইকেট হারানোর পর তৃতীয় উইকেটে জুটিতে ৬১ রান যোগ করেন ব্রেন্ডন ম্যাকালাম এবং বিরাট। এরপর ২৫ বলে ৩৭ রান করে ম্যাকালাম প্যাভিলিয়নে ফিরে যাওয়ার পরেই উইকেটের মন্থর গতি এবং মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বোলারদের স্লো কাটারে ছন্দপতন ঘটে‌ আরসিবি ইনিংসে। হার্দিক পান্ডিয়ার এক ওভারে পরপর আউট হন বিরাট (৩২) এবং মনদীপ (১৪) । শেষের দিকে ১০ বলে ২৩ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে ধুঁকতে থাকা আরসিবি ইনিংসকে ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রানে পৌঁছে দেন কলিন দে গ্রান্ডহোম। ৩টি উইকেট নেন হার্দিক পান্ডিয়া। ১টি করে উইকেট নেন বুমরা,মার্কান্ডে এবং ম্যাকক্লেনাঘান।
    ১৬৮ রান তাড়া করতে নেমে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের শুরুটা ভালো হয়নি। প্রথম ওভারেই টিম সাউদির বলে বোল্ড হয়ে শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান ইশান কিশান। চতুর্থ ওভারে পরপর দুবলে সূর্যকুমার যাদব (৯) এবং রোহিত শর্মাকে (০) ফিরিয়ে দিয়ে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে বেশ কিছুটা ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় আরসিবি। ১৩ রান করে সিরাজের বলে আউট হন পোলার্ড। ২৩ রান করে রান আউট হন জেপি ডুমিনি। এরপর পান্ডিয়া ভাতৃদ্বয় প্রায় শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যান। হার্দিক পান্ডিয়া ( ৫০ ) এবং ক্রুনাল পান্ডিয়া  (২৩)  চেষ্টা করলেও ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রানেই থেমে যায় মুম্বইয়ের ইনিংস। ১৪ রানে চিন্নাস্বামীতে বিরাট-পত্নী অনুস্কার সামনে গুরুত্বপূর্ণ জয় ছিনিয়ে নেন টিম সাউদিরা। ৮ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট এখন বিরাটদের, আছেন পঞ্চম স্থানে। রোহিতের মুম্বই সপ্তম স্থানে, ৮ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে।

    No comments